এই সময়ের চাওয়া
-
হঠাৎ স্তব্ধতায় হতবিহ্বল যখন
যুগল একাকী প্রহর কাটে -
চাঁদ দেখে,তারা দেখে
তরকারির ঝোলে দেখে
আরশোলার সাঁতার কাটা;
জীবন তবে এমনি ছিল!
কত অনুযোগে রাঙানো ক্ষণ
কেমন বদলে গিয়ে হল অভিযোগ,
চিরচেনা মুখে ফোটে ওঠে
একঘেয়ে ক্ষতচিহ্ন,
ভ্রুকুঞ্চনে নেই আড়ালের অপপ্রয়াস,
জীবন তবে এমনি ছিল!
আক্ষেপ ছিল কাছাকাছি
যদি গল্পের সুর বয়ে যেত,
থাকত না কোনও যতি,
চোখের আড়ালে বাজত ঘন্টাধ্বনি
যেন কোন মহা বিপদসংকেত
অস্থির চঞ্চল হৃদয় মাঝে।
খুব বেশি দূরে থাকা ছিল না কাম্য,
খুব বেশি কাছে থাকা নয়ত কাম্য,
তাল লয় কেটে যায়,
স্তুব্ধতা হয় ধ্বনিত সজোরে
ক্রমাগত বাজে বেসুরো রাগিণী ;
মুক্তির প্রার্থনায় চিত্ত ব্যাকুল ।
চাঁদের নায়ে ভেসে যায় মেঘ,
ফুলের সুবাসে ভেসে যায় মন,
দূরে কোথাও শোনা যায়
" হুঁশিয়ার সাবধান "
ভীত-সন্ত্রস্ত আমরা দূরত্ব ভুলে যাই;
চোখে চোখে খুঁজি নির্ভরতা।
ছোট ছোট দুঃখ নিমেষে ভুলি,
ক্রমাগত আসে বড় বড় শোকের ঢেউ,
আমরা ভুলে যাই একসাথে ' কোথায় আছি ',
রাতের ঘ্রাণ কেবলই জানিয়ে যায়
হয়ত কিংবা হয়ত না - এই সংশয়,
হবে কি ভোর অবশেষে!!
২২/০৫/২০