আশাহত
-
খুব ধীরে বয়ে যায়
প্রভাত বায়ুর শিহরিত আবেশ,
মন্ত্রমুগ্ধের মত টানা চেয়ে থাকা
বহদূর থেকে আসবে পথিক,
প্রাঙ্গনে খেলে যাবে প্রজাপতির ডানা।
মধ্য দিনে হতাশ বায়ু
থেমে থেমে বয়ে যায়
আলস্যে আড়মোড়া ভাঙে
শিরীষের ডালে একটি দোয়েল,
ক্লান্ত কাকেরা ভাগাভাগি শেষে।
হঠাৎ আকাশে কালো কালো তিলক
উড়ে যায় যেখানে যত ছিল বক,
বুনোহাঁস দিশেহারা,
না পায় খুঁজে পথ
আসন্ন রাত্রির ঘ্রাণ আপনি জাগায়
থরোথরো কম্পন হৃদে।
কোথায় কে ছিল কেউ জানে না,
অকস্মাৎ ঠকঠক আওয়াজ তোলে,
কারা যায় চলে,অশরীরী আত্মা যেন
মর্ত্যে নেমেছে,তারা দেখে যায়
পুরনো পৃথিবী সেজেছে অচেনা সাজে।
বিস্ময়ে বিস্ফারিত অক্ষি,
নেই চিরচেনা পথ আর,
নেই কিছু নেই আর বাকি
টালমাটাল পৃথিবী দোলে,
দোলে যাবতীয় সব,তালহীন ছন্দে।
ওরা দেখে যায়,ওরা ফিরে যায়,
অসমাপ্ত যা কিছু ছিল সব পড়ে আছে,
নতুন কোনও বৃক্ষ হয়নি রোপিত,
পৃথিবী ক্রমশ সবুজ শূন্য,
পৃথিবী আজ মানবতা শূন্য ঢের বেশি।
নতুন পৃথিবী হয়নি-কো গড়া
কাড়াকাড়ি রইল পিছে পড়ে
আগন্তুকের অন্তর্ধান হয় বিষন্ন লয়ে,
ভাগাড়ে পড়ে থাকে কিছু জীব
পুরনো হারানো কিছু মানুষের কিছু জল চোখে।
অতঃপর তারা ফিরে যায়
গন্তব্যে তাদের,
পিছনে পড়ে থাকে
একটি পুরনো পৃথিবী আর
একটি নতুন ক্লেদাক্ত মায়ার সংসার-অরণ্য।
--১৪/১০/২০১৯