বঙ্গবন্ধু
----
মহাকালের যাত্রী তবু অক্ষয় অমর ইতিহাসে,
যে রক্তের ঋণে আবদ্ধ পদ্মা, মেঘনা
নদীমেখলা একটি বাংলাদেশ।
পাখির কণ্ঠ সুরেলা মধুর
কি নিশ্চিন্ত আজ ভোরের বাতাস,
ঘাসের শিশির চমকে উঠেনা,
কোলের শিশু থমকে থামেনা,
স্বাধীনতার প্রগাঢ় শান্তি আজ বিরাজিত।
মৃত্যুপুরীকে কটাক্ষ হেনে
দৃপ্ত পদক্ষেপে এগিয়ে যাওয়া আর
বজ্রকণ্ঠের কবিতা-
নদী বিধৌত পলল ভূমির জনপদে আজও আনে
উন্মাতাল শিহরণ,
রক্ত কণিকায় ডাক দেয়
অর্গল মুক্তির অগ্নি আহ্বান।
সহস্র বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি
আজ বড় প্রয়োজন ছিল যাঁর,
কী ভুলে মহাকালে অমোঘ যাত্রা!
প্রায়শ্চিত্ত কি করে হয়!
অমূল্য কী করে ফিরিয়ে আনি!
হৃদয়ভাঙার শব্দ সহসাই কুণ্ঠিত দীর্ঘশ্বাসে
গোনে যায় মাশুল।
অযুত বর্ষ কেটে যাবে
হারানোর মর্মবেদনায়,
চির জাগরূক একটি নাম সোনার অক্ষরে
প্রোথিত বাঙালির মানসপটে চিরদিন।
চিরদিন স্মরণীয় স্মৃতির মানচিত্রে
সেই অমর প্রিয় কবিতা
"এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম"
অজান্তে ঝরায় অশ্রুজল।
মুক্তিকামী মানুষের প্রিয় নেতা,
সারাটি জীবন যাঁর কেবলই মানুষের মুক্তির স্বপ্নে,সংগ্রামে নিবেদিত,
প্রিয় সেই নাম-
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।
--১৫/০৮/২০১৯