ছায়া
--
খোলা জানালায় কখন দাড়ায় একটি ছায়া,
যখন একটু একটু করে সূর্যটা দখলে নেয়
সমস্ত পৃথিবীটা তার।
পুষ্পবিলাসে প্রভাত হাওয়া এলোমেলো বয়,
ছায়া মাড়িয়ে মুকুল ফোটে পুষ্পকাননে,
শিহরি উঠে যত ছিল শিউলির ফুল।
ছায়া গাঢ় ছাপ ফেলে ওপাশে যে থাকে তার অন্তস্থলে,
আনমনা দিনগোনা,কখন মধ্যাহ্ন গড়িয়ে যায়,
সব কাজ পড়ে থাকে।
একটি ছায়া সংগোপনে কখনও ইতিহাস হয়,কখনও ভবিষ্যৎ,
খুব কম অবস্থান তার বর্তমানে,
নির্বাক ছায়া পলকে নিয়ে যায় দেশান্তরে,ছায়াপথে, সমুদ্র বা গিরিখাতে।
ছায়া কেবলই অবয়বহীন নয়,তার হৃদয় বাস করে অদৃশ্যলোকে,
অধরা তবু জানিয়ে যায় উপস্থিতি তার
প্রলম্বিত হয় বেদনার ক্ষণ,শুধুই দীর্ঘশ্বাস।
যে থাকে ছায়ার মত,কখনও হয়না ছবি,হয়না কায়া
অতৃপ্ত হৃদয়ে কেবল ঈষৎ আন্দোলন,
মর্মাহত জলাঞ্জলি দেয় সমস্ত ইচ্ছে তার গোপন আধারে।
প্রতিটি মানুষের ভেতরে বাস করে আরেকটি মানুষ,
মুখোশের ভেতরে চাপা থাকে কত ক্ষোভ ঘৃণা,
ছায়া হয়না অপসৃত পাশে পাশে থাকে তবু অধরা সে।
যেন বা নীল জলে আকাশের তারা ঝিলমিল করে
কেবলই মরিচীকা, কোথাও নেই গ্রহ কিংবা নক্ষত্র জলে,
জ্বলে হৃদয়ে, পুড়ে যাওয়া একটি উল্কাপিণ্ড।
ছায়া কেবলই মায়া,জেনে বুঝে ভুল করে
স্বপ্নডিঙ্গা ভেসে চলে স্বপ্নের দেশে,
আসলে কোথাও কেউ নেই।
--৩০/১০/২০১৯