ফিরে যাব
------
জল ছুঁই ছুঁই জোছনা ছুঁয়েছে জল,
ভারী জল বাস করে হৃদয় কন্দরে।
একাকী কাব্য পড়ে থাকে আর
চুপটি করে জুঁই ফুল নাওয়া সেরে
পরিপাটি সাজে আকুল প্রতীক্ষায়।
তুমি একটু আমায় সময় দিও!!
ভারী পাথরের মত চেপে থাকা অবসর
আমায় বিবিধ উপহারে বর্ণিল করে।
জীবনে অজস্র বিফল মূহূর্ত আমার
শুধুই খুঁজে একটু থেমে থাকার নির্ভরতা।
আমি কাগজের একটি খেয়া গড়িয়ে
ভাসিয়ে দিব বৃষ্টির জলস্রোতে,
কদম পাতায় লেখা একটি চিঠি তার সাথে।
যখন তোমার দুয়ারে থামবে সে ভেলা
তুমি চিঠিখানি পড়ে নিও।
তুমি একটু আমায় সময় দিও।
সাঝঘরে থেমে যায় নুপুরের চঞ্চলতা,
অনেক দূরে ডেকে যায় বিরহী বাঁশি।
বৃষ্টির জলে জমাট বাঁধা মেঘ
মান ভেঙে বয়ে চলে ভাসায়ে দুই কুল।
তুমি একটু সময় দিও,আমি নোঙর ফেলে
তোমার কুলে ভিড়াব আমার খেয়া।
কখন কি জানি দুই চোখ নদী হয়ে যায়,
কখন কি জানি হৃদয়ে জলস্রোত বয়
কখন কি জানি গন্ধে বিভোর বিবশ মন
না বলা অনেক কথার মাঝে, লুকিয়ে থাকে
পৃথিবীর সবচেয়ে দামী কথাগুলি।
তুমি একটু আমায় সময় দিও,
আমি একটি বারের জন্য সবাক হব
আমি একটিবারের জন্য বৃষ্টি হব।
আমি ভরা বর্ষার মেঘের মত ভিজিয়ে দেব,
তোমার দুই চোখে দেখব একফোঁটা
জল,শুধুই আমার জন্য।
তারপর চলে যেও যেখানে খুশি মন চায়।
আমি রাত্রির হাত ধরে জোছনার সাগরে বিলীন হব।
আমি ফিরে যাব অনন্ত তৃষ্ণার রাত্রিতে।
৪/৭/১৮