মান
----
লেখা ছিলনা কোথাও,
তবুও তাই ছিল অমোঘ বিধান
তোমার আমার সন্ধিপত্র।
আমার চোখে অথই সমুদ্রজল
তোমার চোখে সুনীল আকাশ
তাইতো দেখেছি দু'জনে একসাথে।
আমি এপারে,নদীর ঐ পারে তুমি
কিংবা ভিন কোনও দেশে,
একসাথে দেখেছি দুজনে  জোছনার স্নান।
ভেবেছি আছিতো এক আকাশের নিচেই দুজন!
এখানে বৃষ্টি ছুঁয়েছি,ভিজেছি ধারায়
কল্পনায় তুমিও ভিজেছ শ্রাবণ ধারা জলে।
আমি খোপায় গেঁথেছি কৃষ্ণচূড়া
তুমি কল্পনায় দেখে নিয়েছ কল্পিত আমাকে।
যখনই সুরে কণ্ঠে তুলেছি অমিয় বাণী
তুমি সুদূরে কান পেতে শুনেছ সে গান।
তোমার ছন্দে,তোমার গানে,তোমার রচিত কবিতায়
কোথায় আমি নেই?
আমার একছত্র দখলে তোমার হৃদয় রাজ্য।
অলিখিত সন্ধিপত্র দুজনে একসাথে মিলে
করেছি রচনা, প্রাণের সুধা ঢেলে।
তুমি কেন আরেকটি চাঁদ দেখতে গেলে আকাশে?
কেন আরেকটি অচেনা সুরে গাইতে গেলে গান?
বল আমার অজান্তে কেন নাইতে গেলে জলে?
সন্ধিপত্র? ছিড়ে ফেলেছি আমি।
যাও তুমি -
সীমানা ছেড়ে,কবিতা,গান সুর সব নিয়ে যাও।
আমি এখন নির্বাসনে যাবো,
যেখানে আর কোন সন্ধির প্রয়োজন নেই।
------৮/১০/২০১৮