প্রজাপতির মত
---
আমি এখন অচল টাকার মত
কোথাও কি নেই মূল্য আমার!
আমি এখন ইতিহাসে,
মূল্যহীন তাই যাদুঘরে
হয়না ঠাঁই আমার।
আমি এখন বোঝা সম
আমার সচল হাত অচল এখন।
আমি নিভে যাওয়া দীপ
রাত্রি শেষে ঝরে যাওয়া ফুল,
আকাশ হতে খসে পড়া তারার মত।
আমি এখন নিঃশেষ ধূপকাঠি
যেন
অকাজের জঞ্জাল ভারী।
আমার কণ্ঠে বাজেনা সুর,
আমার কলমে আসেনা লেখা
হৃদয় ভেদি মর্মকথা।
আমি এখন শীর্ণ শুষ্ক জলধারা
ঝরা পাতার দলের মত।
আমি আর নই রহস্যময়ী
আমার চোখে দেয়না ঝিলিক বিজলি।
আমি ভাঙা পুতুল,জীর্ণ জং ধরা টিন,
আমার শরীরে জরার বাসা ক্রমশ দৃশ্যমান।
তবু আমি জোর করে হাঁটি
প্রাণপন চেষ্টায় ছুঁতে চাই দিগন্তরেখা।
আমি জোর করে হাসি,প্রাণপন চেষ্টারত
যদি বিলীন হয় মলিন বলিরেখা
হাসির আড়ালে!
সময় বড় নিষ্ঠুর তুমি,সব কেঁড়ে নাও তুমি।
কেন কেঁড়ে নাও?
অপাঙ্তেয় এই আমাকে নিয়ে
কোথায় বল যাই?
কোথায় লুকাই নিজের জীর্ণদশা?
মন শুধু প্রজাপতি,সারাক্ষণ ওড়ে
ফুল, চাঁদ, পাখি, নীলাকাশ কিংবা বিশাল সমুদ্রে
যাত্রী হতে চায়,ওড়ে ওড়ে যায় কখন কোন অজানায়।
দেহে আসে শিথিলতা,ক্লান্তি নামে চোখে
মন তবু কেন আবার সবুজ হতে চায়?
ঘাসের ফড়িং কিংবা একটি দোয়েল,
কিংবা কাশের বনে
অথবা দূর অতীত হতে বর্তমান পেরিয়ে
অজানা ভবিষ্যতে যাত্রা করে শুরু।
প্রজাপতি মন,বাড়েনা বয়স,রয়না স্থির
ঠায় জিদ ধরে আটকে থাকে পঁচিশে।
৬/১০/২০১৮