পুনরাবর্ত
--
অনন্তর  তুমি দগ্ধ হও কুপিতের কালে,
হলাহল যুগলবন্দী মাধুরী সঙ্গতে
আর নিমেষে পুড়ে নিঃশেষ
যত আছে বিশ্বাসের আয়োজন।
যদি ভাল না লাগে তবে পিঞ্জরেই আবদ্ধ থাকুক
নিস্ক্রিয় তোমার নিস্পৃহ স্পর্ধা,
নিস্প্রভ আয়োজন অহেতুক কেন
যদি বাড়েই উত্তপ্ত অসহায় দীর্ঘশ্বাস!
নিজের চোখে নিজেকেই দেখ
নিজের হৃদয়ে নিজেরই উচ্ছাস
প্রকটিত হয় বেদনার ভারে,
দেখ না প্রতিটি প্রতিবিম্বের বিপরীত রূপ!
অন্ধ তুমি! কুসুমে খুঁজে ফিরো কীট
অবলীলায় দাও নির্জলা সত্য নির্বাসনে,
নিজের অলীক ভাষণে নিজেই পুলকিত
বোঝ! কি করে হয় স্বকীয় গুপ্ত রূপের প্রকাশ!
ঝঞ্ঝার ঝঞ্জাটে ঝরে ঝরে পড়ে
বকুলের ফুল,অঝোর বরিষণে ফিরে পায়
শুষ্ক  তটিনী বিক্ষুব্ধ সর্বগ্রাসী রূপ তার,
ভেঙেচুরে একাকার ক্ষয়ের পালায়।
ফিরে এসো,ফিরে এসো, ফিরে এসো
ডুব দাও শীতল জলে; গ্লানি যত মুছে দাও
পবিত্র জলে,পবিত্র পদধ্বনির যাত্রা হোক শুরু
সংস্থাপিত হোক পবিত্র আত্মা আত্ম নিমগ্নে।
--১৭/০৮/২০১৯