রাগে-অনুরাগে
--
বিন্যস্ত তোমার সমস্ত প্রাঙ্গন,
বিন্যস্ত তোমার পরিপাটি বাগ,
কুসুমে দোলে আলতো ছন্দে
স্বপ্নের সোনালী সন্ধান।
উন্মুখ উতল হাওয়া
ছু্ঁয়ে দেয় এলোচুল তার
মৃদু লাজে, আর শরতের শিউলি
আকুল কেবলই আবেশ ছড়ায়।
অঙ্গনে নামে হঠাৎ সন্ধ্যা,
হাসনাহেনার স্নিগ্ধ সুবাসে
তারা ভেসে যায় চাঁদের নায়ে।
সবকিছু চুরমার করে,
সবকিছু খু্ঁজে নিত্য তারে,
আমার পৃথিবী খুঁজে ফেরে
একটি সবুজ পত্র।
কেন রঙ্গিন বসন ছিন্ন হয়!
কেন রঙিন মলাট হয় বিবর্ণ!
কেন সবুজ বিটপী হয় পত্র-শূন্য!
যদি থাকে ঊষার লগ্ন চিরকাল
তবে কি লাগত ভাল এত!
বৈপরীত্য এনে দেয় উদ্ভাসিত নতুন,
তবু কাঁদায় একটি সবুজ- আক্ষেপে।
হায় সময়! তুমি এমনি নিষ্ঠুর,
নিষ্ঠুর আঁচড়ে বদলে দাও ঠিকই সব।
মুগ্ধ চোখে দেখে যায় তপ্ত হুতাশ,
দেখে যায় দূর-বনে কেমন সবুজ
প্রাণ ছড়িয়ে ডেকে যায় দগ্ধায়,
রাগে-অনুরাগে অনুরণিত
বিহ্বল তার ক্ষয়িত ভূবন।
--১২/০৮/২০১৯