শকুন
--
সবকিছুই স্থানান্তর হয়,
কথা,জীবন নদীর মত
কিংবা বাতাসের মত
বয়ে চলে যায়,
স্থানান্তরিত হয় নতুনে।
সত্য গোপন হয়,
রঙ চড়িয়ে প্রকট হয়
যা কিছু স্বাভাবিক,
কিংবা বদলে নেয়া
নিজের মত করে,
সবকিছুই রঙ বদলায়।
যেমন নিপাট বুননে সম্পূর্ণ হয়
কাঁথা ফোঁড়ের বন্ধনে,
কিংবা কাব্য গাঁথা গ্রন্থিত থাকে
কথার বন্ধনে,
আর উন্মুখ থাকে
যে থাকে প্রতীক্ষায়।
অগ্নি এসে সব একাকার করে,
সব ছাই হয় নিমেষে,
তোমার আমার অহংকার যত,
আত্মগর্বে মহীয়ান যারা,
কিংবা লোভী পাপাত্মা,
কোথাও ফাঁক থাকে না,
একটানা বয়ে চলে
শিখার তাণ্ডব।
আমরা চোখ মুদে থাকি,
জপ করি, ধ্যান করি,
আড়চোখে তাকাই-
সময়কে স্তব্ধ করে দিলে
সবই আত্মস্থ হত,
নিজস্ব সম্পদে গরীয়ান।
মুখবন্ধ রচিত হয় মুখরক্ষায়,
অগ্নি নিজে পুড়ে,পোড়ায় নির্দ্বিধায়,
কেবল গোমড়া শকুন সংশয়ে মরে,
লোভীদের মুখবন্ধ থাকে কি?
শকুন দেখে নির্লজ্জ ভিন্নরুপ,
অবলীলায় শকুনের আত্মায় ভর করে
কিছু ভিন্ন প্রাণী।
কথাগুলো রয়ে যায়,বয়ে যায়-
সমুদ্রের ঢেউয়ের মত
তারপর শকুনদের ইতিহাস রচিত হবে,
অবাক বিস্ময়ে দেখবে আগামী।
১১/০৩/২০২০