মুখ-বই
খাতুনে জান্নাত
.......


ঢেউয়ের নাভিতে  বেড়ে উঠে কীর্তন মানুষ
কুয়াশার ঘোরে জলের পিপাসা
ফেস ও বদন খোঁজে স্পর্শ,  মানসের  উষ্ণ ফানুস...


মুখ-বই লুটে নেয় অলস সময়
ব্যস্ত সময়ও
আকাশচারী হয় মাটির মানুষ
ভোর বেলায় মৃতের মুখ নিয়ে খোলা মুখ-বই
শিশুর ক্রন্দনরত মুখে সূর্যকরোজ্জ্বল সরোবর
আমরা ফড়িং দল লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়াই জন্ম, মৃত্যুঘরে-
শুভকামনা, ভালোবাসা  উষ্মা, ঘৃণা একসাথে বিনিময় করে..


মুখ-বই য়ে পড়ে থাকে স্রোতের নিঃশ্বাস
মার্বেলের মতো ঘুরে কেউ
কেউ লুট করে অন্যের পঙক্তি, শব্দ, দিগন্ত বিলাশ
কেউ কেউ চুরি করে চোখ
উড়ো হাতে  লিখে চিঠি মেঘের ঠিকানায়
প্রেমের খোঁজে অহোরাত্র ম্যাসেঞ্জারে কেউ কেউ রঙিন পোস্টার
কেউ মাখে অন্ধকার,
কামসূত্র
কলা-বৈকল্য
স্খলন, দহন,  প্রেত উদ্ভাস...


আলোর সার্কাসে শুয়ে থাকে মায়াবতী অন্তর্জাল...
ঝড় ও বৃষ্টিতে ভিজে বর্তমান-ভবিষ্যৎ
আগুন ও তাপে কেউ কেউ পুড়িয়ে দেয় খাবনামা
ক্যাটাপিলার ভেঙে বেরিয়ে পড়ে মথ
উড়তে থাকে মধুমাস
কালের সমান্তরাল অকালপক্ব কালে...