না না, যৌতুক আমরা নিবো না
  শুধু ঘর সাজিয়ে দিলেই চলবে
  খাট আলমারি সোফাসেট আর কিছু
এই আর কিছু ছাড়েনা পিছু
  ছায়ার মতো কন্যাপক্ষের সাথে থেকে যায়
  না হয় সাজানো ঘর, না থাকে উপায়।
না না, আমরা যৌতুক নেবো না।


না, আমরা একদম যৌতুকের পক্ষপাতী নই
  তবে যা খুশি করে দিবেন তাতেই আমরা খুশি।
  এই খুশি কন্যাপক্ষের ঘাড়ে
           জন্মদাগের মতো বসে যায়
  না মিটে খুশি, না সরে দাগ
           খুশি মিটানো হয়ে পড়ে বড় দায়।
না, আমরা একদম যৌতুকের পক্ষপাতী নই।


না, আমরা যৌতুক দাবী করি না
  ছেলেকে একটা চাকরি পাইয়ে দিলেই হবে।
  আপনাদের মেয়ে, তার সুখ দেখাটাও
            আপনাদের দায়িত্ব
  আমাদের ছেলে তো আপনাদেরই হয়ে গেলো
  তাই চাকরির জন্য একটু চা-পানি দিলেই হবে।
না না আমরা যৌতুক নেবো না
না, আমরা যৌতুক দাবী করি না
আমরা যৌতুকের পক্ষপাতী নই।


১১ জুন, ২০২০


(কাব্যগ্রন্থ- বিষফোঁড়া)


কাব্যগ্রন্থ পরিচিতিঃ
("বিষফোঁড়া" কাব্যগ্রন্থটি সমাজের সমসাময়িক বিভিন্ন সমস্যা- [ যৌতুক, অত্যাচার, চুরি, তেলবাজি, ফাপরদালালি, দলাদলি-কোন্দল ]- কে কটাক্ষ করে রচিত। শরীরে যেমন বিষফোঁড়া ব্যথার সৃষ্টি করে, তেমনি এই সমস্যাগুলো সমাজে গুটি গুটি আকার ধারণ করে দেশ ও দশের ব্যথা-যন্ত্রণার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এটি একটি ব্যঙ্গার্থক ও বিদ্রূপাত্মক কাব্যগ্রন্থ)