মিথ্য বলা মহাপাপ, পাপের জননী
"মিথ্যা কেবল ধ্বংস আনে" নবীর বাণী শুননি?
একটি মিথ্যা ঢাকার জন্য বল শতটি
তবু মিথ্যা ঢেকে তাহা সত্য হয় কি?
মিথ্যা আর বিশ্বাস ভঙ্গ ঈমানের বিপরীতে
জান্নাত হইবে হারাম থাকলে দু'টো চিতে।
নবী বলেন, "মিথ্যার গন্ধ সইতে নাহি পেরে
ফেরেশতারা যায় যে চলে মাইল দূরে সরে।"
বিন্দুমাত্র মিথ্যার ছোঁয়া ছিলনা দেখে
'আল আমিন' উপাধি পেলেন চরম শত্রু থেকে।
"মিথ্যা হতে বেঁচে থেকো" নবীর উপদেশ
নয় জাহান্নামের আগুনে পুড়ে হবে শেষ।
একবার যদি কেউ মিথ্যা সাক্ষি দেয়
বিনিময়ে তিন শিরকের গুনাহ্ কাঁধে নেয়।
হেসে হেসে মিথ্যা বল গল্প-ঠাট্টার ছলে
কভু কি ভেবেছ তা নিয়ে যায় কত তলে?
ঢাকায় থেকে ফোনে বল, ' আছি রংপুর '
কভু কি ভেবেছ তা নিয়ে যায় কতদূর?
একটি কুড়াল দিয়ে তোমায় বলে যদি কেউ,
"নবীর রওজায় মেরে এসো শক্ত কোপের ঢেউ।"
মুসলমান হয়ে তুমি পারবে কভু উহা?
যায়ে তারও অধিক কস্ট পান, তবে কেন করছ তাহা?
প্রতিজ্ঞা করো আজ ওগো মিথ্যের নদী
" আর কবনা মিথ্যা কভু জীবন যায়ও যদি।"
সত্য বলায় তোমার যদিও প্রাণ চলে যায়
ভেব দুহাত বাড়িয়ে নবী তোমার প্রতিক্ষায়।
পৃথিবী ছাড়বে তুমি দুদিন আগে পরে
কি এমন মুনাফা পেলে মিথ্যেয় বোজা ভরে?
মিথ্যাবাদী হয়ে তুমি কেমনে কর আশা
তোমার সন্তান তোমার সাথে কবে সত্য ভাষা?
সত্যবাদি মানুষ যেন ধ্রুব তারার মত
সর্বদা আল্লাহ্ সাথে বিপদ আসুক যত।
আল্লাহ্ যাহার সাথে তাঁহার কিসের ভয়?
তবে কেন করছ চারণ মিথ্যা রাজ্যময়?
মিথ্যা পিতৃ পরিচয়ে হবে জাহান্নামী
টাকার জোরে বংশ তোমার লও যদিও দামি।
কাল ছিলে মল্লা-মোড়ল, আজকে সৈয়দজাদা
তাই বলে কি অর্থ তাপে মুছে যাবে কাদা?
চট বিছিয়ে হাটে ঘাটে করলে গামছা ফেরি
আজকে তোমার পায়ে শোভা 'চৌধুরী' নামের বেড়ি।
মিথ্যা দিয়ে না গড়িয়ে ময়ুর সিংহাসন
সত্যের মাঝে কর কেবল জীবন অন্বেষণ।
বিত্ত নয় সত্য দিয়ে সাজাও জীবনখানি
তবেই তুমি ধনে জ্ঞানে সবার কাছে মানি।
সত্য হল পাঞ্জেরী, মিথ্যা নিকোষ কালো
মিথ্যাবাদী কবরে কাল পাবেনাতো আলো।
সত্যবাদীর শীরে শোভা খোদর নূরের তাজ
কিয়ামতে মিথ্যুকের মাথায় পড়বে লানত বাজ।
মিথ্যাবাদীর জিহবাখানি শক্ত করে টেনে
পেড়েক ঠুকে দিবে সেদিন পিষ্ঠ দেশে এনে।
সত্য বল সত্য শিখাও তোমার পুত্র কণে
চলতে কভু দিওনাকো মিথ্যাবাদীর সনে।
সত্য ভাল সত্য আলো সত্য শুভকর
বিষক্ত সাপের চেয়েও মিথ্যা ভয়ংকর।
শিশু জ্ঞানে ডাকাত সর্দার নাহি জিঙ্গাসিলে
তবু স্বীকারিলে বালক কেবল সত্য বলে,
" মুদ্রা কিছু আছে আমার নিতে পার তবে
মায়ের নিষেধ আছে আমার মিথ্যা বলা ভবে।"
দিল সবি আস্তিন খুলে ডাকাত পতির হাতে
একশত স্বর্নমুদ্রা বাধা ছিল তাতে।
ডাকাত কহে, " ওহে বালক বলি তোমার তরে,
এত বোকা হয় কি কেহ এই জগতোর পরে?
প্রাণ দিবে তবু মানুষ অর্থ দিবে নাহি
তুমি কেন সবই দিলে যদিও না চাহি?"
বালক কহে, অর্থের চেয়ে সত্য দামি অতি
স্বর্নের লোভে মিথ্যে কয়ে আনব কেন ক্ষতি?
ধন-দৌলত, টাকা-পয়সা সাথে নাহি যাবে
সত্য চির আপনজন কিয়ামতেও রবে।
হয়তো মিথ্যে বললে আমার স্বর্ন যেত বেঁচে
কাল যে দোযখের আগুণ আপন হেবে যেচে?
অর্থ কড়ি দূর ছাই! হোক সোনার সিংহাসন
বিনিময়ে নিতে কি পারি নরকের আসন?
সত্যের চেয়ে দামি কিছু কি আছে ধরায়
সে সত্য করব গোপন এ সামন্যর মায়ায়?
এত বোকা নইতো আমি ধর, এবার নাও
বউ-বাচ্চা নিয়ে দুদিন আরাম করে খাও।"
ডাকু কহে, একি বাণী শোধালে তুমি
স্বর্গ যেন হল এবার পাপে সিক্ত ভূমি।
এই যদি হয় ধর্ম তোমার, সত্য মায়ের শিক্ষা
কঁচি হাতে দাওগো মোদের ন্যায়-ধর্মের দীক্ষা।"
এমন খোদভীরু বান্দি আসতে হবে ঘরে
তবেইনা সত্যবাদী জন্ম নেবে পরে।
খোদার সে পৃথিবী আছে, আছে চন্দ্র-তারা
ভূবন করল আলোকিত কেবল নেইকো তাঁরা।
একদা এক দুস্ট লোক নবীর কাছে কয়,
"সকল দোষে দূষি আমি কি করি উপায়?
চুরি-ডাতাদি, খুন-খারাবি কিছুুই বাদ নাহি
এবার ওসব হতে হুজুর পরিত্রাণ চাহি।"
হুজুর কহেন, "তাই যদি চাও মিথ্যা ছাড় আগে
তবেই দেখবে রহমতের ফুল ফুটবে তোমার বাগে।"
বউকে বোন বানিয়ে কিংবা চাচি, মামি
জমিন খানি লিখে নিই লাখ টাকা দামি।
বন্য পশুর মাঝেও নেই মিথ্যা বলাবলি
আশ্রাফুল হয়েও আমরা অধ:পতে চলি।
মিথ্যার বেসাতি আজ পুরো জগৎময়
অসত্যের এ পৃথিবী নরক মনে হয়।।


    ***
উৎস: কালের কন্ঠ, ৩রা মার্চ, ২০১২ইং । মাসুদা বেগমের 'মিথ্যা সব কবিরা গুনাহের মা' কলাম অবলম্বনে।