অনেকটা পথ হেঁটে এসেছি আসরের পথে,মাননীয় এডমিনের সাহচর্যে ও অবশ্যই সহযোগিতায় এখানে পেয়েছি অনেক বন্ধু এ বন্ধুত্ব অনেক সুন্দর উত্সাহ,উদ্দীপনা ,ভালোবাসা আবার অনেক তীর্যক মন্তব্যও-কখনো অভিমান হয়েছে কখনো মেনে নিয়েছি, কারণ জীবনে চলার পথে বহু ঘাত-প্রতিঘাত পেরিয়ে সময় এগিয়ে নিয়ে চলে সমুখে।আর এই চলতে গিয়ে কখনো মসৃণ,কখনো বন্ধুর পথে কতরকমের বাধা-বিঘ্ন আমাদের সম্মুখীণ হয় আর এসব পেড়িয়ে এগিয়ে চলার নামই জীবন। তাই এই আসরেও এমন বহু ঘটনার ইতিহাস সাক্ষ্য হয়ে রয়ে যায়,এখানে লিখতে এসে প্রথম যে অভিজ্ঞতাটি আমার হয়েছে তা হল--


পূর্বে যখন লিখতাম নিশ্চয়ই এরুপ নিয়মিত লেখার অভ্যাস তৈরী ছিল না ফলে কবিতার মান হয়তো তেমন উন্নত ছিল না কারণ নিয়মিত অভ্যাস ও চর্চায় যে মেধা বা যে কোনও জিনিস যত ক্ষুরধার হয় অনভ্যাসে তা ততটা প্রখর হয় না। আমার ক্ষেত্রে অন্তত তাই হয়েছে। এর জন্য এই আসরেরে কাছে আমি কৃতজ্ঞতা জানাই। যদিও প্রতিভা বা মেধা মানুষের ঈশ্বর প্রদত্ত ক্ষমতা কিন্তু সেই ক্ষমতাকে আরও তীক্ষ্ণ ও ক্ষুরধার করে তোলে নিয়মিত অভ্যাস চর্চা যা এই আসরে এসে সম্ভব হয়েছে।


লিখে ফেলেছি প্রচুর ,সমুখেই বইমেলা কিন্তু মন খারাপ হয়ে যায় যখনই এই লেখাগুলো বই আকারে বের করতে চাই,একটি বইয়ের প্রকাশনা মূল্য আমাদের অনেকেরই সামর্থকে ছাড়িয়ে যায়,আজকাল বাজারদরের উর্দ্ধমুখী প্রভাবে প্রায় অনেকেরই এ বিষয়ে অল্পবিস্তর অভিজ্ঞতা রয়েছে, তাছাড়া আজকাল এত পরিমাণ কবিরা লেখালেখি করছেন যে বই প্রকাশ করেও পাঠক কিন্তু নামী লেখকদের বই পড়তেই বেশী স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করছেন।


এক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে কম্পিউটারের বিভিন্ন ওয়েবে লিখেই আমাদের সন্তুষ্ট থাকতে হচ্ছে। এমনকি সাহিত্যের একাডেমী  প্রাঙ্গণেও পর্যন্ত এই লেখকদের কোন পরিচিতি গড়ে উঠছে না।অতএব প্রথম সারির লেখক ও কবি হিসেবে কিন্তু একদল মানুষ (সকলের ক্ষেত্রে নয়) চির বহাল কবি ও সাহিত্যিকের আসন অলংকৃত করেই রেখেছেন। এমতাবস্থায় আমাদের পরিণতি কি-------


জানতে সকলের মতামত আহ্বান করছি।