বেশ
কোন মদির স্বপ্ন দেখব না আর
হৃদয়ে ঘাত্ দিয়ে ফিরে যাবে
যে যার ঘরে
আমি একা রাত জেগে জেগে জেগে.....
একসময় টেনে নেব দড়িটা
তুমি দেখতে থেকো,শেষ মানুষটার মতো
শূণ্য করে যখন রাত্রিটাও বিদ্রুপ করবে
ঘরের আসবাব দেরাজ আর
শখের পালঙ্কের পাশাপাশি বালিশদুটো
গলার মধ্যিখানের শুষ্কতায়
ঠিকরে পড়বে মণিপ্রকোষ্ট একরাশ শূণ্যতায়
আর আমার পাশে তোমার
গভীর সংসার ফুলে ফেঁপে উঠবে
নিবিড় মমত্বে, না আমাকে অপব্যখ্য কোর না
বিশ্বাস করো গভীরাবর্তের মরু সেঁচে
এই হৃদয়াবর্তে আমিই বুনেছি
জীবনের বীজ
সে বীজ প্রখর দাহে আজ বিচ্ছিন্ন লুপ্তপ্রায়
দশটা বছর ধরে তুমিই চেয়েছ
অস্থিচর্মসার একক বিধীর অন্তঃসার
তাতে বিকল্প মাল্যয়ন করে
ছেড়ে দিতে হবে পথে ঘাটে।
আজ আমি সেই মালা ঘেটে ঘেটে
অচ্ছ্যুৎ হয়ে আছি, তোমার অনুৎসাহে পৃথিবীও
চাইল না ফিরে।
সবকিছু বিলিয়ে দিলে অথচ
আমি?
কি এক অদ্ভুত কিংবদন্তি হয়ে রয়ে গেলাম
কেন, বলতে পারো?
জানি এই অথৈ নীরবতার উত্তর হয় না কোন
একমাএ মৃত্যুই পারে
সমস্ত অনাদায়ী প্রশ্নের জবাব দিতে।


[ আপনার মতই কিন্তু নকল নয়    ]