তোমাকে পেয়েছি বন্ধু
জীবনমন্থন করে উঠে আসা
এক অমৃতের মতো।
জীবনের কোনো সন্ধিক্ষণে
যখন হয়েছি বিভ্রান্ত
তুমি এসে ধরেছ হাত, ভরসা দিয়েছ,
দিয়েছ সঠিক পথের সন্ধান।
আজকে তোমাকে তাই
আয়নার মতো মনে হয়।
সামনে দাঁড়িয়ে প্রতি মুহুর্তে প্রত্যক্ষ করি নিজেকে।


তোমার করুণা তথাগত
যেন কোটি বর্ষের
বিগলিত হিমবাহ।
নির্মল তটিনীর মতো বয়ে চলে
হৃদয় থেকে হৃদয়ান্তরে
দিয়ে যায় ভালোবাসার কোমল স্পর্শ।
নিমেষে ধুয়ে যায় জীবনের
যত সঞ্চিত ক্লেশ, গ্লানি, ব্যর্থতা,অভিমান।


সে এক কোন সুদূর কৈশোরে
একাকী ক্ষ্যাপার মতো পথচলা শুরু
সাথ দিয়েছিল কিছু রাস্তার কুকুর
গড়ে উঠেছিল একটা সম্পর্ক তাদের সাথে,
একটা নিশ্চিন্ত বিরোধীতার সম্পর্ক।


সারাটা দিন হাঁটার পরে
সন্ধ্যার আঁধারে একটু জিরিয়ে নিতুম
পথের ধারে।
বুকের ভেতরে বইত নির্জনতার হিমেল হওয়া রাতের আকাশের তারাদের জুড়ে জুড়ে
তোমার মুখ আঁকতাম।
সেই বিমূর্ত ছবি মুছে যেত ভোরের আলোয়।


সম্পর্কের হিসেবী খাতা সাথে নিয়ে
হয়ত কখনো কেউ এসেছে।
আগাম ক্ষতির কথা ভেবে সরে গেছে।
তোমার কাছে জানলাম
হৃদয়ে প্রসারতা না থাকলে বন্ধু হওয়া যায় না


সবাই আসে ক্ষণিকের অতিথি হয়ে
শুধু তুমি বন্ধু রয়ে গেছ
আজও হৃদয় জুড়ে।