কচি ধানের পাতার ডগায়
       শিশির ভেজাই ছুইছে আবেশ,
দুর্বা ঘাসের ফোঁটায় ফোঁটায়
        জল ঝরেছে শীতের আমেশ।


দুপুর বেলার থমক রোদেই
                 আজ গগনেই নাইরে ছিরে।
শরত কালের আকাশ খানি
        ভাঙছে মেঘের দুয়ার ঘিরে ।


সকাল বেলার পা ধুইয়ে দেয়!
           রাতের জমা হাজার নিশি,
সরিষার খেত কলই খেতের
        মাঠ পেরিয়ে আবাদ কৃষি।


নেইকো কোথায় বৃষ্টি ঝরার
           ঝর ঝরিয়ে মেঘের পানি,
কোথায় থেকে চুপচুপিয়ে,
       শীতল পাটির বিছানার খানি।


আজরে এলো হেমন্তকে কুঁড়েই
             পাবার মাঠ পেরিয়ে।
সকাল বেলার রসের পিঠায়
       খাইতে বসি হাত বাড়িয়ে ।


হঠাত করে বদলে যাওয়ার
      হিমেল ছোয়া বাতাস ছোটে
আনল নতুন করে ডেকেই
       উৎসবের নাক গন্ধ জোটে।


রাতের বেলার চাঁদের হাসির
          বড়ো অনেক মধুর বেশি,
কানায় কানায় পাখির সুরের
       নীল আকাশের রং বিলাসি।


ঘুঘু ডাকার টিয়ে ডাকার
         ভোর দুপুরের ক্ষণে ক্ষণে,
হেমন্তেকে পথ ডেকেছে মাঠ
                ডেকেছে আগমনে ।


খই মুড়ি আর চিরার লাগি
        খেজুর গাছের মাথার খুঁড়ে,
মিষ্টি রসে মন ভরে দেয়
         খেজুর গাছের তৈরি গুড়ে।