সময় যখন গড়িয়ে চলছে বিকেল হবার বাকি,
রাত্রি যখন জোছনা মাখায় সকালেই খুলি আঁখি।
চলছে গাড়ির  চাক্কা টায়ার ভনভন দূর ঘুরে,
থামছে কোথায় চালিয়ে সেথায় আপন লক্ষ্য ফুরে।
যাত্রী বোঝাই চলেছে ট্রেন উপচে পড়াই ঘির,
কাউন্টারে ঐ অল্প টিকিট ভিত্তে অথচ ভীর।


একটি ছিটের তিনেক যাত্রী  আন্ধা ঝাঁপছে বসা,
একটির কোল তিনেক যাত্রী আপন চিন্তা দশা।
চলছে সময় চলছে সুরুজ ঘুরছে গ্রহ গুলি,
আজব মানুষ পাল্টে গিয়েছে স্নেহৃর নাহি তুলি।


তাল পাতারই হাতেক পাখার প্রাণক জুড়াই দিত
সেই বাতাসের ঘুমির জুড়ির ছোঁয়াই মেলাই ইতো।
থামিছে কে কই! কোথায় থামছে কেউকি মন্ত থাকে,
নাই জোর পায় রাত্রির তাঁরা সে গনছে লাখে লাখে।
অনেক দিনেই বসে থেকে কভু আবারই যদি বসে,
আর কতোদিন রইবি বসেই যৌবন গিয়েছে ধসে।


সময় যখন গড়িয়ে চলছে বদলে যাচ্ছে তাতে,
ভালবাসা কভু বদলায় না রে আজ রূপাতণ খ্যাতে।
আজো প্রকৃতি বদলেনি যার কোমল বায়ুর দিক,
ঔ চন্দ্রিমা বদলায় নাহি  নীল আকাশটা ঠিক।
ফুল গুলি তাই আধুনিক নারে আগেরই মত ফুটে,
আগে নাই যার কষ্ট সাধন হাতের মুঠেক জোটে।