রূপালী ইলিশে গন্ধ ভরিছে
এই আমাদের নদীর কুলের তটে,
পদ্মা মেঘনা যমুনার কুল
নোনা জলখেলা চলে ঢেউয়র পটে।


নদী মমতার বনো ছায়া ঘেরা
সবুজে শ্যামলি মাঠ ঘাট ভরা ভরা,
নদীতীর আসে ঢেউয়ের খেলা
এই পরিবেশ চিরদিন মনহরা।


এই আমারই মাতৃভূমির
জলাঞ্জলির চিরাচরি তারে রূপ,
এই রূপ মাখা মানুষের মুখ
পাখিরও মুখ বনমালী অপরূপ।


নদীর বুকেতে করিছে লড়াই
দিনরাত মাঝি ধরিছে রূপালী মাছ,
স্বাদের গন্ধে এই জাতি জ্ঞাতি
ফুরফুর মন ভালো থাকে একরাশ


মেঘনার কুলে বাড়ি আমারেই
নদীর মিতালি চলে করি মন পণ,
আকুল পরাণে সুতার বাঁধিতে
এই নদী মাঠ করেছি যার আপন ।


আছে ধান ক্ষেত আছে নদী মাঠ
আছে সরু বাঁকা পথ,
আছে প্রিয়জন আছেও সপন
প্রকৃতি খেলা মিশা মিশি রূপা মত।



নদী ভরা জল  ফুল পাখি দল
পাল তোলা নৌকো সাড়ি,
বনফুল মাখা তাঁক  তাঁক ভাঁজ
লতাপাতা গাছ  তারি।
আছে দুর বিল পরে থাকা খিল
মাঠে বনগরু চড়ে,
নদীর কিনারে ওড়াউড়ি ওই
ঝাঁক বাঁধা পাখি ওড়ে।


এই নদী খেলা মানুষ মিশিছে
করেছে আলিঙ্গন,
এই দেখি মাঠ এই দেখি ঘাট
এই দেখি ঐ ভাঙন।

নদীর মাঝেই চলে একখেলা
ডাঙায় আরেক টাই,
দুই মিলে আছি ভালবেসে যাই
এই প্রকৃতি ভাই।


ঘোলাজল মিশে খেলা করে পানে
নদীর মিতালি গানে,
এই আমারই আকুল প্রাণের
নদী মাটি কলতানে।


কোমল বায়ুর পরাণ বাঁধিতে
এই বুক লই কুড়ে,
এই প্রিয় মাতৃকে থাকি
মেঘনে আকুল জুড়ে।