তোরা এক ঝাঁক যাবি সেই মোর বাপচড়া বাড়ি,
ঐ দেখিবি নারিকেল গাছ পড়ে আছে সাড়ি সাড়ি।
পথেই দাঁড়িয়ে আছে এক লম্বা দরজার পথ!!
পাশে আছে এক বিল,সেথা পড়ে আছে খিল তথ!!


ওই বিল পাশে আছে ইটের কারখানার মাঠ,
তাহার সামনে আছে  এককল দোকানর পাট।
সোজাসুজি যদি চাস চিকন দরজা চলে আস,
দেখবি সেথায় আছে, পুকুরের এক করে চাষ।


সেই দরজাটি মোর, বাপ চড়া এক গাছ বাড়ি,
একটি নলের কুপ, পাশে দারচিনি গাছ জুড়ি,
পাশে দেখবি  কল এক আমলকির গাছদাড়া,
লেবুর গাছের পাতা ধোকনায় লেবুফল ছড়া।


ঐ জৈষ্ঠের ফলগুলি ধরে আছে আম জাম গাছে,
ফাগুনে যদিও যাস দেখিবে ঝিঝিরা ডাকে পাছে।
দেখিবি চালতা ফুল ফুটে আছে গাছে গাছে,
বর্ষার গেলেও যদি শুনিবি দোয়েল গানে নাচে।


ভরা বাগান সুপারি আছে বিশাল একটি বন,
পাশে দেখিবি যাহার একটি নদীর চলা ক্ষণ।
ফলের মৌসুমি যাবি খাবি চালতা বর্তার রস,
লবন মরিচে খাবি  আমড়া কামরাঙ্গা হরস।
জলপাই গাছ আছে দেখেনি রয়েছে একতার,
একটি গাছে কুকিল নিজ বসে বসে গান করে,
দেখবি শিমুল ডাল লাল লাল ফুল ফুটে ঝরে।


সেই মোর বাপচড়া বাড়িরই রয়েছে পুকুর,
দেখিবি রয়েছে এক পালনতো বাড়ির কুকুর।
দগ্ধ গরম প্রচন্ড বায়ু বায়ু দোল রাতারাতি
ওই নারিকেল গাছে চিকন পাতাতে মাতামাতি।
ফুলফল গাছ ভরা চারদিক মনহর কুল,
যেটাই চাইবি ছিড়ে হাতে নিয়ে দেখবি সেকুল।