স্বাধীনতার প্রাণ কতোটুকু আছেরে বেঁচে,
পূর্বাশা সূর্যের মতো চেয়ে আছেরে হেসে।
যেমন উঠে ছিলো স্বাধীনতে প্রথম দিন,
চঞ্চল চোখের তাকিয়েছে উদিত রবি।


স্বাধীনতা একটি উদযাপনে মুল মন্ত্র???
রক্তের উপর পাড়া দিয়ে করেছে অন্ত।
কতোটুকু বইছে বাংলার বায়ুমলে,
বাংলার প্রাণে মানুষের গায়ের দলে।
সেই রঙ লাভার চিরমুক্তিতরে শ্বাস,
এই বাঙালির জখম কটা অবকাশ।।
স্বাধীনতা এসেছে বেঁচে  মুখের মুখ তারে
বেঁচে নাই প্রাণেই জীবন যাত্রার চূড়ে।


এই নদী মাঠের সমুদ্রের পথে হাঁটে
এই বাঙালির ঐ জীবন বিসর্জ পটে।
স্বাধীনতা এসেছে? অসহায় লোকের কাছে
স্বাধীনতা এসেছে? মুক্ত মনে চলে পাছে।


ধান গম পাটের সবুজ শ্যামলের নীড়ে,
স্বাধীনতা এসেছে কৃষকের মাঠের ভীড়ে।
স্বাধীনতা এসেছে পথিকের রাস্তে কাছে,
স্বাধীনতা এসেছে? নারীদের মুক্ত দাসে।
স্বাধীনতা এসেছে? আফিস আদালত ঘিরে
স্বাধীনতা এসেছে? মুক্ত কন্ঠের ছিড়ে।


স্বাধীনতা আছে কি  মুজিবের তর্জি মতো,
সাত কোটি মানুষ বাঙালির ভয়ের ক্ষতো।
হরিরাম বলেই দিয়েছে প্রাণ বলি দান,
কালিমা পড়িয়েই দিয়েছে লুটে মাটি শান।
আজিকে তাহাদের কোথায় মনবল দাম,
কোথায় লুটিয়েছে স্বাধীনতার দাম কাম।


আমরা জানি আছে স্বাধীনতা রয়েছে ঘিরে
কোন বাঙালির মুক্ত মঞ্চের ফিরে।
স্বাধীনতা রক্ষা স্বাধীনতা এসেছে ঘিরে
নামিক স্বাধীনতা দুয়ারে পৌঁছিয়েছে তার


স্বাধীনতা রয়েছে কতোটুকু বঙেই বহে
সবুজ শ্যামলের উপর দিয়ে উরে তহে ।
স্বাধীনতার প্রাণ কতোটুকুই বেঁচে আছে
কতোমন বলের তাঁর কাঁটার জাল ছিঁড়ে
স্বাধীনতার নাম এসেছে বাংলার দুয়ারে।
প্রাণ নাই পূরোপুরি স্বাধীনতা সতেজ ফিরে
স্বাধীনতার নই ফুরফুরে বাতাস ঘিরে।