রূপসী তুমি সজাগ রেখো দুই চক্ষু কান,
দুষ্টু ছেলে মিষ্টি করে ছিঁড়িতে পারে মান।
ওপারে ওই দুষ্টু ছেলে লইতে পারে মজা,
ফুলের মধু খাবার লোভে জিহ্বা তরতাজা।
আহা এমতি কতো জনের মধু খাইল ওরা,
মিষ্টি করে আপন করে প্রাণেই করে জোড়া।
কথার সুরে বায়ু গন্ধ ডাকে কুহর তান,
আস্তে করে নিশি রজনী আহায় বলে জান।


সব দি বাতা মন দি বানা এটা তোমার ধন,
রূপসী তুমি জানছ কভু কী আকাশ সমান।
ওপারে ওই দুষ্টু ছেলে ভঙ্গি করে ঢঙ,
কথার চটে মধুর লোভে সাজে বহুতা রঙ,
মন খোরাক খুশি কাটুক রাখো সজাগ কান,
দুষ্টু ছেলে মিছা নিকার বলতে পারে জান।
হাসির মুখে সময় কাঁটে মিলিয়ে দাও আড্ডা,
সাদা দিলের বাঁধাই কিসে চল হাড্ডি হাড্ডা।


খেলতে পারে মনের আশা নিরাশা ঢঙ দিয়া,
মনের গাড়ি চড়ন খেলা সব কাড়িবে নিয়া।
মন চাতুরী লইতে পারে বুঝতে নাই পারো,
যত্ন রাখা ভান্ড নাই মিছা কথার ঝরো।


রূপসী তুমি সজাগ রেখো নিজ চক্ষু কান,
সময় গেলে ভাঙতে পারে নিজের সম্মান।


##
মাত্রাবৃত্ত ।।