শিশুদের নাই হাসির মুখর বেশ আজকাল
ওদিক এদিক জগত চলছে বেসামাল।


পড়ার প্রতি অমনোযোগ পড়তে,
খেলা ধুলায় চায়ানা গাড়ির চড়তে


ঘুম পুরেনা  কোথায় খেয়াল ক্ষনে
উগ্র মনোজ দেখায় বেশির ক্ষনে
আজ শিশুদের এমন অবনতি
               নতুন ধারার বিজ্ঞানের এই গতির।।


আহারে দ্যাখা কী জামানা রূপ
নেই প্রকৃতি নাইরে চেনা খুব


সারাক্ষণৈ  ফেজবুকে রয় চোখ,
গেমস গেলে কাটছে পেটের ভোগ।


জানেনা কই মাঠ পেড়ুয়ে বন
  ঘর বন্দি এই শিশু কিশর দল
দেখো আছে নাইরে চলো ছল।
শিশু কিশোর হবে কী বিকাশ
                    অভিশাপ কী আছে অবকাশ??


          খাবার দাবার রুচির আছে কই শয়ন
                 জগত ভুলা বাহিরে উদয়ন
হটতে চলতে অতিদূর পথ- নেই
পথ আছে যা চলার কেহো কই??


পথিক হেটে করে তৈরি পথ,
না হটিলে থাকবে কী আর পথ
হাঁটু আছে মনের দেহের ভার
এ যুগে নেই যাওয়ার দরকার তার
হাত বাড়ালে সকল পাইছে নিকট
             দেহর উপর অথচ ঘটায় সংকট।


চারদিক বালাই রোগ বসতের বাস,
স্বস্তি পাইতে খুজে নির্মুল শ্বাস।
                গরম ভেজাল ছুটেছে চারদিক,
               অবুঝ মনের খোঁজে নানান দিক
নীয়ম নীতির পাল্টানো এই মেলা,
জগত আজকে ভরায় ডুবছে বেলা।


রচনা কাল,
স্থানীয় বাসা ভোলা।
স্বরবৃত্তে মাত্রা।।


২।।।


অভিন্নতা
মোঃ মুসা ইসলাম


একটি সময় মন ভরিয়া তোমায় শুধুই  চাইতাম,
ভালো লাগার হিসেব খানি তোমার দেখে পাইতাম।


আজ তুমি নেই গুণ্য  হৃদয়  হতাশায় মন ডেকে
ডাকব ডাকব করে তোমায়  ডাকিব কি ভেবে।


বলা ছিলে আমার হবা এতো বলা ছিলো না,
এটাতো কোন ভাবার বিষয় আমার মাঝে ছিলেনা।


তোমার সম্মুখ অন্য দেয়াল দাঁড় কাড়লে ললনা।
সব কথার যার  ছিলো এমন হরাবার তো ছিলনা।


যেই দেয়াল এর অদেখা জল জ্বলজ ঘুচে জন্মে,
যেথায় কেউতো বাস করেনা অগাধ হৃদয় ফ্রমে।


তবু কথা ছিলো না গো,,,,ওগো কথা ছিলো না ,,,,,,,,,
এটার সেকার কিছুই ছিলো  সেদিন কথা ছি লোনা।
চাওয়া গুলো নিজের কাছে চাওয়া হলোনা,
তুমি নাই আর কিছু নাই আর  পাওয়া হলো না।


এমোতো ৪✝৪✝৪ অতিপর্ব