চোখ যেনো কয় কথা মুখ যেনো চুপচুপ,
মুখ যেন জল পাতা টলটলে টুপটাপ।
কান্নায় ঢেউ উঠার সমুদ্রর জলোচ্ছ্বাস।
মনকাড়া লুকোচুরি জমকাল একরাশ।


কূল চুরি ভুল হয়  মন চুরি বড়ধন,
ফুল চুরি কুল চুরি একি কথা আলাপন।
এই মুখ মায়াময় চোখ যেনো ফিরে নাই
রূপকথা আঁকি  মুখ এই মাঠ মিশে পাই।


হাসি যেন উজাড়িত কুঁড়ে আনা ঝাউবন,
চলে যেন হৃদে ছোঁয়া হেলে দুলে সযতন।
চোখ দুটো মায়াময় টানা টানা নিজকেনা
আপনার বেশি চাহে মনভরা লেনাদেনা।


অঙে মাখা রংতুলি সাত রঙে খেলে মন,
তারে দেখে জুড়ে মন শীত নাহি কনকন।
নাচে পাখি নাচে দোল বায়ু ময় তোলবার
ছেলে বুড়ো দ্যাখে খুব মনে উঠে তোলপাড়।


বাগিচায় ফোটা ফুল বাগানের পাখিদল,
তার কথা মনে হলে চুপিচুপি কোলাহল।
শালুকের ডোবা পাতা ডোবা জল ভাসাফুল,
কালকেশি মাথা ভেজে উঠা মাঠে ঘাসফুল।


সবথেকে মনে হয় গহনার মাঝে খুব,
লেগে থাকে মুখভার মিশে দিয়ে দেই ডুব।
দেখে তার মনে হয় পাপড়ির ফোঁটা ফুল,
হেঁটে যায় খালি পায় কানে লহে বন দুল।
বর্ষায় কদমতি মিলে যায় ভেজা পায়,
শিশিরের জল ঘর হেঁটে যায় লাগে গায়।


মাখামাখি করে দেই মুখখানি হলুদাভা,
ঘুঘু পাখি লাল পায় রঙ মাখা রংশোভা।
তাকে ছোঁয়া রেষারেষ উঁকি দিয়ে যায় মন,
তার তরে খুলে মন বনমালী ফুলে গাঁথে মন।


স্বপ্ন আনে বোনেজাল স্বপ্নীল করে সব মুখ,
তার তরে পাগলামি কতলোক খুঁজে সুখ।