সেই মিথ্যুক নিজেই দাঁড়িয়ে করে ছিলো এক ওয়াদা!!
বিশ্বাসে তার মসজিদ গড়ে কিড়িমিড়ি দাঁত কিড়ায়।
হাতে নিয়ে চলে কোরান কিতাব মানে আল্লার ভীতির।
একা কি একলা গোপনে গাপনে একাকার বিড় বিড়ায়।


করছে ওয়াদা দারমুখী মুখে নিয়েছে দৃঢ়তা খেয়াল
মানুষের ঢল না মিছে অটল তরতাজা লোক কাহিল!
অভিনয় বাজী নাগরাজ বিরা অটল কথার বানায়
সকল বাঁধাকে তুচ্ছ করিয়া দাঁড়িয়ে থাকবে শীতিল


কে স্বার্থপর কে অনর্থক বুঝিবে কিভাবে সকল
কোথায় বড়াই মুখের পুরুষ বুঝিবার ভান মুখটি
কোথায় রাখিবে বিশ্বাস অটুট ধর্ম রাখবে মনটা,
কোন শক্তিতে চলবে সকলে পায় ভরে চলি হুক টি।


আল্লা দিল কোরান কিতাব অবমাননা কী  করিল!
কতোটা শক্তি দিয়ে এই ধরা পবিত্র নাম জপছে
মানুষের ছাড়া কোরান হয়নি কিতাব নাজিল হয়না
মানুষের মনে বিশ্বাস ঘাতক ধোঁকা ধোকি ভাব রূপছে।


কিছু বছরের মিথ্যুক প্রজ্ঞা জ্বালাবে আগাই বাতিক,
লোভ শোভ পায় উপচার ধ্যানে খেয়াল পাতছে পাতন
কোথায় তাহার ধর্ম বর্ম নিজের মিলায় কেতন
ভাঙছে মনের সকল চাওয়া বৃথাই গিয়েছে সাদিক।


বরখেলাপি টা বুঝাই গিয়েছে কসম করিল রুখেই
বলিল আল্লা তুমি এই পথ সোজা করে দাও আমার
মিথ্যুক যদিবা সিমানা ছাড়িয়ে করতে থাকেন ওয়াদা,
আমল নামটা ভারি করে দেন বানান পাপের চামার।


স্বার্থ লোভীরা মাথার ঠাণ্ডা করে চলে নিজ বৈঠক
তাহার লাগিয়া নাই বা দোজখ নাই বেহস্ত সরস।
নিজের ভুলকে বাচাইতে গিয়া করছে অপর হতাশ
তাহার জন্য রাখিয়া দিয়েছে  অগ্নত্বকের পরশ।


মাত্রা বৃত্তের