রূপসী তুমি কন্যা তুমি স্বর্গে নামা হুর,
মন না চায় চলে যাইতে ছেড়ে অনেক দূর।
শ্যামল মাখা মুখ তাহার ভোমর দুটি কালো,
দেখতে খুব জোছনা চাঁদে ঐ পরশ মাখালো।
যখন বসে অন্য ডালে উঠে ভীষণ রাগ,
চাইনা তারে অনাচারে ঐ হয়না যেনো ভাগ।
মিষ্টি কথা মধুর সুরে  তাহার গলা সুর,
ছল চাতুরি ভাল লাগেনা পরান জুড়ো জুড়।
বৃষ্টি এসে লজ্জা পায় ঘোমটা দিয়ে বসে,
তাঁকে দেখলে সবুজ পাতা হর্ষে নিরলসে।
মায়া ভরানো মুখের ছবি কাজল মাখা আঁখি,
সবুজ বনে অবুঝ পাখিকরে উঁকাই উঁকি।
তাঁহার সাথে রাগারাগির চলছে সারা ক্ষণ,
কোনো বখাট নজর রাখে তার অবুঝ মন।
রূপসী পায় রূপসী তায় করে বা অযতন,
মরিচিকার রৌদ্রজ্বল ঘটে যদি তখন।
চাইনা তাকে রাগের চোট রাখব কভু ধরে,
কেন জানিনা লইতে পারি নাই যে ভুলে আরে।
সুতায় বাঁধা প্রজাপতি দিলাম তাকে ডানা,
যথায় যতে ছাড়াব সুতা করব নাকি মানা।