স্বাধীনতার কথাটি তুমি কী ভাবছ???
উনিশ একাত্তরের যুদ্ধ ইতিহাস,
বাঙালির অধিকার আদায়ের উক্তি
বাঙালির চলাফেরা মুক্তির উচ্ছাস...।


কী ভাবছ তুমি শোন!! নয়তো জানাও
যুদ্ধ কভু হতো নাকি ভাইয়েরে ভাই
ভাইয়ের সামানেই বোন অত্যাচার,
ভাইয়ের সমানেই ভাইয়ের রক্ত...।
ছেলেদের সামনেই পিতামহ রক্ত...।
স্বামীর সামনে স্ত্রীর হারানো ইজ্জত।


থাকতে পারেনি তারা চলতে পারেনি
ঘরে থেকে বের হতে একটু পারেনি ,
কৃষক মজুর জেলে কামড় কুমার
শিক্ষক ছাত্র গুনীরা হাসতে পারেনি।


কৃষাণীর নিশ্বাসটা বন্ধ হয়ে যেত
কৃষক তাহার মাঠে একাকি হাটলে!!
একটু নিশ্বাস ছিলো বিশ্বাস ছিলনা।
ধর্মের দোহাই দিয়ে হত্যা হতো শলে।


একদল হিন্দুরই ঘরের সংসার।
তাছনাছ করে ছিল পথ অধিকার
এই বাঙালির সাথে ছিল মাঠ ঘাট
পরিচয় দিতে কুন্ঠা এ হতো বাংলার।


মাঠ ছিল ঘাট ছিল তা ছিল বেরাজি।
সেইদিন পথঘাট দুহঃ দুহঃ কেঁপে উঠে
বাঙালির হাতে গড়া মাঠ বৃক্ষরাজি।


পাকিস্তানি হানাদারে বিধ্বস্ত গুলিতে
মাঠঘাট পুড়ে ছাই হয়েছে নির্মল।
অভিশপ্ত হলো ওরা  দিয়েছে বাঙালি
সাথে সাথে দিয়ে ছিল সবুজ শ্যামল।


ভোরের কাকটি কন্ঠে আর্তনাদ করে
মানুষের ফাঁকে যদি গুলি লাগে গায়
মাঠে ভরা রক্ত দেখে বেরেনি গুরুটি।
চোখের উপর তার মালিকের মৃত্যু
সেই কাল রাতে পুড়ে ছাই হল ঢাকা