পরাণদা'র ডায়েরি
..........................


"তোমাকে বিশ্বাস করতে কষ্ট হয় বলে
বলিনি বিশ্বাস করি না..
আলো সত্য বলে রাতে যে তোমায় ছুঁইনি
তা তো নয়..!
বরং রাতরঙে তুমি স্পষ্ট ছিলে...।


মেকি মেকাপে অযাথা ফরমালিন ফলজ পসরা..
কিছুটা রসালো যদিও..
পঁচনের ভয় তবু আছে!
বরং উত্তমা রাত
দিনেকানা কলঙ্ক ঝেড়ে ডানা ঝাপটায় হুতুমপেঁচা..  
চিরকালের বেহায়া বাদুড়
চুষে নেয় ফলজ সম্ভ্রম.।
বেওয়ারিশ হুলোটা..
পোষমানা মিউটার জিহ্বা চেটে চেটে
নাকেমুখে পরকীয়ার গন্ধ মাখায়..।"
------
বিছানাটা অপাঙক্তেয় হলেও-
পরাণ'দা ডায়েরি লেখে খুব সাজিয়ে।


বিকেলের রোদ্দুরটা তাকে খুব জ্বালায়..
হাতছানি দেয়-
পা বিড়বিড় করে-
বুকের ভেতর কোথায় যেনো মোচড় মারে।


এখনো পরাণদা'র মন ছুটে যায় ও'পাড়ায়..
মুখে খৈই ফোঁটে সুন্দরীদির গল্প।
পরাণদা'র কষ্ট হয়...
তবু সে জানে-
ছগা'র হাটের সুগন্ধি জর্দা'টা এখন অন্য কেউ আনে..
এও জানে-
এখন সুন্দরীদি'র হাতের পান অন্য কেউ খায়...।


পরাণদা'র কষ্ট হয়...
নেহাত গায়ে জোর নেই-
তাই উপোষ করে সিঁকেয় বাঁন্ধে মনটা।
রাতকে সে ভালোবাসে ঠিকই..
ঢের বেশি বিশ্বাস করে সুন্দরীদি'কে।।


মিটুল কুমার বোস
তাং-16/11/2018, শুক্রবার।