যদি পারো, সব শংকা ত্যাগ করে চলে এসো
এসো, সনাতন সভ্যতার শিকল ভেঙ্গে
এসো, জন্ম মৃত্যুর মতো ধ্রুব সত্য হয়ে
এসো, অতিক্রান্ত সময়ের স্মৃতিস্বপ্ন ছিন্ন করে
এসো, অগ্নিস্নান করে মনের শুদ্ধতার মিছিলে
তুমি এসো, আমার কাছে ভালোবাসার অভিষেকে।


যদি তুমি চলে এসো অষাড় হবে সব অভিমান
মুহুর্তেই থেমে যাবে হৃদয়ের রক্ত-ক্ষরণ
হৃদপিন্ডে ঝড়বে ভালোবাসার শীতল বৃষ্টি
তাসের ঘরের মতো উড়ে যাবে অবিশ্বাসের পৃথিবী।
যদি তুমি ফিরে এসো, তোমাকে দেব
অখন্ড আকাশ, অনন্ত নীলিমা, সবুজ প্রান্তর
কাছে এনে দেব দূরের নদী, পাহাড়ের ঝর্ণা, নীল সমুদ্র
এনে দেব রাখালের বাঁশী শুনাবো কোকিলের সুর।


সেদিন তুমি চলে যাবে ঝলমলে বনানী দুপুর-
অপরূপ সূর্যস্মীথ সোনালী বিকেলের কাছে,
যাবে মান্নাদে’র কপি হাউজে অথবা রমনার বটমূলে।
মায়াবী আলোয় তোমাকে পাবো তিলোত্তমা,
এক অপরূপ সাঁজে অপলক নিবিড়-নিভৃতে।
বেলা শেষে বেলিখোঁপায় দেব রাশি রাশি রজনীগন্ধা
উপহার পাবে ধ্রুপদী স্বপ্নের চন্দ্রাবলী রাত।