প্রাগৈতিহাসিক প্রবাহমান ধারা
চলমান অবিরত ধাবিতমান
চলছে এগিয়ে ঐতিহাসিক
মহা ইতিহাস বিদ্যমান
কি আবৃত কি নগ্নতায় বিকশিত ধারা
অনুমান নয়, নয় পরীক্ষিত প্রতিয়মান
কিবা সভ্য-অসভ্য নেই জানা তার
নেই কোথাও তার অভিধান।


অবারিত অনাবৃত পরিবার পরিজন
কভু বিচারে দণ্ডায়মান
মুখে শ্রবনিত শাণিত জ্ঞান কৌশল
বিকশিত সভ্যতার মহিমা
বিকশিত হয় সভ্যতা যেখানে
অসভ্যতা এসে দানা বাঁধে সেখানে
পরিবার হতে সে বিকশিত
এর নাম মূল্যবান সভ্যতা।


ছেড়েছি গোন্ডি পেয়েছি সমাজ
দেখেছি প্রার্থনা শিখেছি নামাজ
ধরেছি সভ্যতার হাল
জানিনা এ কেমন জাল
থাকেনা সে স্থীর এ কেমন জঞ্জাল
কখনো বিদ্রোহী কে করবে সামাল
এঁকে চলেছে সে এই সভ্যতা
অসভ্যতার স্ফুলিঙ্গ অনন্ত কাল।


অনন্ত ধারণা বির্সজন দিয়ে
এগিয়ে চলা আবিষ্কারের মোহে
যেখানে সমারাহ নতুন দিগন্তের
কিংবা ভঙ্গি কিবা দর্শন বচনে
ব্যাবধানের হীনা বাঁধন
নির্যাসিত প্রত্যাশিত-অপ্রত্যাশিত
এ কোন পরিবর্তনের ধাঁরা
এটাই কি সভ্যতা-অসভ্যতা!


বর্হিবিশ্বের এ কোন বাণী
যন্ত্র তন্ত্র মন্ত্র নয় তো কানা-কানি
চাই সভ্যতার উন্নয়ন
চাই বিকশিত মন প্রাণ
চাই স্বাধীনতার মহা গান
যে বিজয়ে এগিয়ে যাবে সভ্যতা
উঁকি দিয়ে দেখি যা তাই
সবখানেই যেন মহা অসভ্যতা।


ঘর হতে বাহিরে রমণী
পুরুষ তাবুতে মোড়া
বস্ত্রে আবৃত নারী বি-বস্ত্রের পায়তারা
যেখানে রবে পুরুষ সেখানে নারী
এ যেন সমধিকারী
পদাচরণে রঞ্জিত করবে
বিশ্বের যতো রংমহল
তবেই হবে সভ্যতায় সফল।


রবেনা আজ ঘরের কোনে
এসো বাহির হয়ে
থাকবেনা আর নারী
কারো ভোগের পণ্য হয়ে
ঘুম থেকে জেগে উঠে
দেখি নতুন স্বপন
নারী আজ হয়ে গেছে
অনাত্মীয়ের বেশি আপন।


উন্মুক্ত হচ্ছে মতামত
বিশৃংঙ্খলাতায় আসবে বার বার
এটাই কি অবদান সভ্যতার
মত প্রকাশের স্বাধীনতার
অন্যকে ছোট করে
হয়ে গেছি উদার প্রাণ
তুচ্ছ কারনে হীন করে
বিশৃংঙ্খলায় খুঁজি সভ্যতা।


আকাশ মাধ্যম বিকাশ মাধ্যম
ক্ষেপে উঠেছে আজ
চারিদিকে আজ সভ্যতার জয় জয়কার
করে বাস্তবায়ন অসভ্যতার
যা করেছে সমাজে অস্থির
আজ চাই তার বাস্তবায়ন
সন্নিকটে-স্বল্পক্ষণে হয়ে যাবে
সভ্যতার এক ধাপ বাস্তবায়ন।


যা নিয়ে আজ মহা সভ্যতা
আসলে তা সভ্যতা নয়
নারী আজ নগ্ন বাহাদুর
এটাই তো বড় পরাজয়
সে হবেনা অন্যের ভোগ্য
হবেই হবে মহা স্বাধীন
কৌশলে আজ সেই নারী
পুরুষ্য ভোগ-বিলাসিতায় পরাধীন।


(কবিতাটি “বিপরীত” কবিতা গ্রন্থের অর্ন্তগত)