আজকাল সাহিত্যের পাতায় মগ্ন থাকি দিন রাত
কেন জানি মনে হয় শব্দ গুলি ধূসর মরুভূমির বালির কনা।
বসে ভাবি একা একা বিরান শূন্য নদীর ধারে
বুঝি না অবাক করা বুসুধাতে হারিয়ে গেছি কি-না ঐ পারে।


ছলনার পরিভ্রমণ হিতাহিত জ্ঞান নিয়ে উঠে বসে আছি
কবিতা উপন্যাস এবং গল্প ইত্যাদি লিখে আমরা পণ্ডিত মশাই।
জগাখিচুড়ী বানিয়ে পতপত করে বলে থাকি কবি ও কথাসাহিত্যিক
পাই না কিছুর মিল আছে শুধু অমিল হয়ে যায় গরমিল ।


লেখক প্রমথ চৌধুরী কে বলতে শুনেছি সাহিত্য কারো নুনের পুতুল নয়
তাহলে শব্দের খেলা ঘরে খেলছি নিপুণ হাতে তারতম্য মাথায় না রেখে ।
রবি ঠাকুর - কবি নজরুল মাইকেল জসিম উদ্দিন জীবনানন্দ লিখেছে সনেট পদ্য
যুগের সাথে তালমিলেয় রচনা করি গদ্য কবিতা ও রূপকথার ঝুটি।


তারপরে ও আমাদের তৃষ্ণার অনেক কথার বুলি শুনি পারিব কি উত্তীর্ণ সে তায়
মহাকাব্য রুচি তে বেদনার হাহাকার চড়াও হয়ে ধাবিত হবে আমার হিয়ার মাঝে।
ডুব দিয়ে দেখি শব্দ চয়ন আছে মহা ভারতের রামায়নে মহাশ্মশানের চির কুটায়
উপলব্ধি করি মনের দ্বারপ্রান্তে আসলেই আছে শব্দের বাহন অর্থের ভাণ্ডারে।
খুঁজে বেরাই অতল সাগরের মনি মুক্তা র ধারে ধরা দাও হে শব্দ লিপি স্মৃতিচারণের গহীনে..।