*              নাভিকুণ্ডের খোঁজে
                অজিত কুমার কর


   শেষ জীবনে বৃদ্ধাশ্রমে ঘরে হয়নি স্থান
ভেবেছিলো কাটবে সুখে, জুটল অসম্মান।
          তিন ছেলেরই বিশাল বাড়ি
           সবার বিলাসবহুল গাড়ি
মায়ের চলে আপন অর্থে, ভালোবাসায় টান।
            ক্লান্ত দিয়া নিভে গেল
            শ্মশান ঘাটে পুত্র এল
  উচ্চ কণ্ঠে কীর্তনিয়ার বিদায় বেলার গান।
'পৃথিবীতে কেউ কারো নয় মিথ্যা মায়াডোর
      ছিন্ন হল সেইটুকুও মুক্তি হল তোর।'


  চিতার আগুন নিভলে দেখে শুধু গরম ছাই
নাভিকুণ্ড কোথায় গেল, ছাইয়ের ভিতর নাই।
             বিফল হল অনেক খুঁজে
               পুত্র তখন চক্ষু বুজে
ঘোমটা মাথায় এক বুড়িমা শুধায়, 'কী তোর চাই?
             নাড়ির টান তো ছিল না তোর
                দুর্ভাবনায় এখন বিভোর!
   আগেই বোঝা উচিত ছিল, এবার আমি যাই।'
      তখনই সে তাকায় ফিরে শুনসান প্রান্তর
       একাই ঘাটে বসে আছে, ব্যথিত অন্তর।