অভিজাত আবরণে ঢাকে নিজ দেহ
আয়নায় চোখ রেখে দেখে সেই ছবি
বাতাসে ভাসতে থাকে ভাব কবি কবি।
লুকোয় হিংস্রতাটুকু বুঝবে না কেহ
ঘুণাক্ষরে যাতে কেউ না করে সন্দেহ।
কথার ফুলকি ওড়ে যত আজগুবি
ওটাতে সর্বদা ওরা সুদক্ষ খুবই
অন্তর কালিমালিপ্ত শূন্য মায়া স্নেহ।


পতঙ্গ ঝাঁপিয়ে পড়ে রূপের আগুনে
কী দশা যে হতে পারে টের নাহি পায়
জ্ঞান চক্ষু মোহে অন্ধ টান দুর্নিবার।
যা ঘটার তাই ঘটে কুরে খায় ঘুণে
বেরোবার পথ রুদ্ধ থাবা অতিকায়
বিফল সকল চেষ্টা শ্বাপদ–শিকার।