প্রখর উত্তাপে আমি শুদ্ধ করি চিত্ত
ঝরে পড়ে দেহ হতে কলুষিত স্বেদ
তোমাতে আমাতে যেন না ঘটে বিচ্ছেদ।
অফুরান শক্তিধর আলো দাও নিত্য
একাই একশো দিনে সকলে উদ্দীপ্ত।
হলেও অনলে দগ্ধ করি না নির্বেদ
বঞ্চিত হয় না কেউ করো না প্রভেদ
উচ্চনীচ কানাখোঁড়া ধনী নিম্নবিত্ত।


প্রেরণার ফল্গুধারা ঝরে নিরন্তর
প্রাণের অস্তিত্ব ভবে তোমার কল্যাণে
ব্রহ্মাণ্ডের বুকে তুমি দৃপ্ত প্রভাকর।
তোমার সংসার বাঁধা মহা ঐকতানে
নভে জ্যোতিষ্মান সদা রূপ বদলাও
নমি তব পাদপদ্মে মম অর্ঘ্য নাও।