নিশীথে স্বপনে দেখি দাঁড়ায়ে শিয়রে
শুধাইছে ক্ষীণ কণ্ঠে ‘কী হয়েছে তোর?’
জননী এসেছে আজি অন্ধকার ঘোর।
ললাটে কোমল স্পর্শ বারিসিক্ত-করে
অতীব দুর্বল আমি দু’দিনের জ্বরে।
দমকা বাতাস এসে ধাক্কা দিল জোর
চমকিয়া উঠে দেখি বন্ধ আছে দোর
কেউ তো ভিতরে নেই একা আমি ঘরে।


হারিয়েছি জননীকে বর্ষণের দিনে
সে ব্যথা মনের কোণে আজো জাগরূক
পরিশোধে অপারগ ডুবে মাতৃঋণে
শৈশবে হয়েছে কত অসুখবিসুখ।
পলে পলে কত ব্যথা মা’র স্নেহ বিনে
এখনো ব্যথিত করে জমে থাকা দুখ।