পৃথিবী মারা গেছে, তার প্রাচীন খোলসে
লেগে নেই কোনো জন্মদাগ।


ধু-ধু প্রান্তরে শুধু নীরস পাথর।


নিস্তব্ধ বাজনা বাজছে ফাঁকা হাওয়ার বুকে।


একদিন নদী ছিল,পাখিদের গান ছিল,
সোনালী প্রভাত ছিল, ফুলে প্রজাপতি ছিল।
পাতায় পাতায় ছিল সবুজের ছাপ,
মানুষের ইট, কাঠ, জঙ্গলও ছিল তার বুকে।


চুপচাপ সব কিছু মুছে গেছে।


মৃত্যুর গভীর থেকে উঠে আসছে বিষাক্ত নিশ্বাস।


নক্ষত্রের ফ্যাকাশে আলোরা
শুরু করতে পারছে না নতুন কোনও গান।


প্রেতপুরীতে একলা দাঁড়িয়ে রয়েছেন ঈশ্বর।


আশেপাশে কেউ নেই যে হাত রাখবে তার কাঁধে।


ঈশ্বর কাঁদছে, তার জমাট কান্নারা সৃষ্টি করছে নতুন নদীর!