দেখেছি তাকে গোধূলিতে আলো আঁধারের
সন্ধিক্ষণে নদীর ঘূর্ণি পাকে।হাবুডুবু খেয়ে
ডুবে মরবার আগে সে বাঁচানোর আকুতি
জানালো বিধাতাকে।
এ কী দুঃসময়।স্রোত হীন নদী ঘাটে শ্যাওলা  
জমার মতো সমাজ সভ্যতার বুকে অবক্ষয়    
ঠাঁই গড়ছে অবলীলায়।কলঙ্কিত করছে তাকে
দুঃসাহসিক স্পর্ধায়।কালপেঁচা ডাকে।মানুষের
স্বাধীন চিন্তা-চেতনা হাবুডুবু খাচ্ছে প্রলয়ঙ্কর    
ঘূর্ণিপাকে।
বহু আশা নিয়ে সেও ফুলের কুঁড়িদের মতো  
বিকশিত হতে চেয়েছিল।আগ্রাসী পঙ্গপালের
দংশনে তার সারা দেহ ক্ষতবিক্ষত।সমাজের      
রাত জাগা প্রহরীরা ভীত সন্ত্রস্ত।
সন্ত্রাস মুক্ত পরিবেশে বাঁচার আশায় সাধারণ
জনগণ লতা গুল্মের মতো আশ্রয়দাতা বৃক্ষের
খোঁজ করছে নিয়ত।