ভিঞ্চির মোহনীয় পরশে,
শিল্পীর যাদুস্পর্শে
তোমার অপূর্ব সৃষ্টি।
যুগ-কাল-শতাব্দী পরেও
তুমিই আলোচ‍্য!
তোমার রূপলাবণ‍্য,
মায়াবী দৃষ্টির চুলচেরা
বিশ্লেষণে কফিকাপে তুমুল
প্রানের বন‍্যা, চিরকাল।


মাটির পৃথিবীতে,
তখন তুমি ষোড়শীর
প্রানঢালা উচ্ছাসে
আত্মমগ্ন। পেলব নরম
আয়তনয়না তুমি।
প্রজাপতির রঙীন ডানায়
সদ‍্য উড়তে শেখা তণ্বী।


প্রানদীপ্ত উচ্ছাসে,
তোমার কাঁকন চুরীর কন্ কন্
মায়াবী হৃদয়,
মখমল নরম রেশমী কুন্তলে
তুমি অনন‍্যা। আজও .........
তোমার জন্যই ভোরের আকাশ,
রামধনুর সাত রং,
কোকিলের কুহুতান,
কবিতায় পায় প্রাণ।


তোমাকে,
এঁকেছি হৃদয় ক‍্যানভাসে।
পার্বতী নও, নও রাজলক্ষ্মী,
লায়লী-শিরী-জুলিয়েটও নও
তুমি নিরূপমা।
তুমি অনুপমা।
সাতচল্লিশ বসন্ত করেছি পার।
আরও সাত সাতচল্লিশ
শীত-বসন্তেও,
মিশরের পারামিডে,
আরব সাগরের নীলে
হিমালয় চূড়ায়,
মরুভূমির তপ্ত বালুচরে
রবে তুমি,
কবিতায়-গল্পে-গানে।


সবুজ পৃথিবীতে,
তুমিই আমার চেতনা।
আমার মোনালিসা।


রচনাকাল...........২৯/১০/২০২০