মুচড়ে মুচড়ে ভেঙ্গে পরে-
কেঁপে কেঁপে ওঠে নির্মম ক্লেদে
কেঁদে কেঁদে ঢ'লে নিরপরাধে!


বিকারগ্রস্ত কাপুরুষের ঘরে
নিপীড়িত গৃহিণীর আর্তনাদ,
লাঞ্ছনা- বঞ্চনায়
কষ্টের হাহাকারে-
নেশাগ্রস্ত স্বামী -স্ত্রী হবার অপবাদ।


কার অপরাধ? কার অপরাধ?
কেন এই অপবাদ?…..কেন এই অপবাদ!


ধিক্কায়-ধিক্কায় রেনু কাজের আশায় ঘুরে
শিশু মেয়েটার পেটের ভাত জোগাতে ঘুরে,
মানুষের দুয়ারে দুয়ারে হাতজোর করে
কাজ করে টাকা আনে; থাকে অনাহারে।


মাদকের নেতার, নেশার মাদকতা
কাপুরুষ লাবু ঘুরে, ঘরে আনে ব্যার্থতা ,
রেনুর পা চেটে-কখনোও লাঠি দিয়ে পিটে
রক্তক্লান্ত রেনুর টাকা-নিয়ে যায় লুটে ।


আর জ্বালা সহেনা পাষাণের অত্যাচারে
নির্মম ক্লেদে কেঁদে-রেনুর চোখে জল ঝরে,
আমি দেখেছি, দেখছে সমাজ
কত শত রেনু কাঁদে-জানে এই সমাজ।


ঐ কাপুরুষ; নেশাগ্রস্ত অমানুষ!


কাপুরুষের নাই লাজ, নেশার ঘোরে করছে বিরাজ
টেবলেটের মতই গলে-নষ্ট করছে সুস্থ সমাজ।