যুগ পেরিয়ে ত্রিশের পরে-
বসে আছি আমি সেই উত্তরের বারান্দায়।


বরাবর, পাচ কাটা জমির পর
খেলার মাঠ সেই বিকেলের অপেক্ষায়,
তারপর, সূর্যের কুসুম রোদ্রতায়
সবাই আসবে, খেলা হবে, ভাঙ্গবে খেলা সন্ধ্যায়।


মাঠের সবুজ ঘাসে, খোলা আকাশ ভেসে যায়
ঘাম ঝড়জড়ে, নূতনেরা খেলে যায়
নতুন বিষ্ময়ে নিত্য নতুন ভাবনায়
জীবন থেকে জীবনের খেলাঘর খুজে পায়।


আজকের এইদিনে-
তিনকাটা জমির পর, চারকাটার উপর
মনু মিয়ার বহুতল মস্ত দালান ঘর
পাচ কাটার উপর, খনিল আজব সাগর
রোয়া রোয়া মাঠের মাটি,ভাঙ্গল খেলার ঘর।


তবুও-
সাকুর উপারে সেই মাঠের কিনারায়
নূতনেরা আজও থাকে খেলার মগ্নতায়,
জীবনের শতখেলা, বেলায় ডুবে যায়
বসে আছি আমি এই উত্তরের বারান্দায়।।