ভালোবাসা কোনো শক্তির প্রয়োগে চলে না
ব্যাপনের মতো, কোনো চাপ ছাড়া বহমান;
অনায়াসেই তরলের নীরব চলাচল।
অভিস্রবনের ন্যায় দুটি মন ভিন্ন ঘনত্বের বা ভিন্ন
পরিবেশের হয়ে থাকে।


সময়ের সাপেক্ষ ধীরে ধীরে
পাশাপাশি থাকতে থাকতে একসময় দুজনে,
মিলেমিশে একাকার হয়ে যায়।
রাসায়নিক ক্রিয়া-বিক্রিয়ার মাধ্যমে,
তৈরী হয় দৃঢ় শক্তিশালী বন্ধন;
যাকে ভালোবাসা বলে অভিহিত করতে পারি বৈকি।


তবে দুটো বন্ধন অর্থাৎ দুটো মনের সম্পর্ক,
একে অন্যের না হওয়া পর্যন্ত এই প্রক্রিয়া বা
দুটি মনের লেনদেন চলতেই থাকে,
অভিস্রবণ বা ব্যাপনের ন্যায়।


ভালোবাসায় অহমিকা দম্ভ উঁচু-নিচু
ধনী-গরিব কিছুই বাঁধা হয়ে দাঁড়ায় না।
সমঝোতাই ভালোবাসা কে,
দৃঢ় ও মজবুত করতে সহায়তা করে।