অবিশ্বাসের ধুতুরা ফুল এতটাই শক্তিশালী যে
বিশ্বাসের দানা ফলাতে পারেনি সময়ের বাহারী সাঁকো
প্রতিনিয়ত ভুল অংকে ভরে যায় সবুজ অরণ্য
লতালো আগাছা কেবল জড়াতে চায় মিথ্যে জাগতিক মোহ।

হয়তো এভাবেই জ্যোৎস্না ভেদ করে খসে যায় প্রতিদিন
জ্যোতির্ময় আলোর কণা সময়ের চারপাশ ঘিরে
তুমি আমি আমরা সবাই কেবল নীরব সাক্ষী হয়ে
অজ্ঞাত ভূমিকায় দেখে যাই ডুবন্ত জাহাজের মৃত্যুর কান্না।

যে সময় গেলো কিংবা চলছে সে সময়ের নামকরণ হতে পারে
তবে তাকে ধরে রাখা যেন কচু পাতায় বৃষ্টির ফোঁটা
এ যেনো ক্রয় বিক্রয়ের আড়ম্বর ভবঘুরে চক্রব্যূহ
যেখানে প্রতিনিয়ত বারুদের শলাকায় পুড়ে সহস্র কলমের দাগ।

অনাবৃত বেদনায় একাকি রাত্রি যাপন করে সময়ের অখন্ড স্বরলিপি
জেগে থাকে চরায় জমে থাকা জল; জাগে ধুলোমাখা শুকনো পথ
ঋতুর পাখিরা স্বেচ্ছায় নির্বাসন দেয় নিজস্ব কণ্ঠনালী নির্বিকার হতাশায়
অনিবার্য স্মৃতি বুকে সময়ের পাটাতনে জমে কেবল অভিশপ্ত আঁধার।