জানালায় রাখি হাত, খুলে যায় খোঁপার কাঁটা
এলোচুল দুলে উঠে সময়ের নির্যাস মেখে
চারদিকে বাতাসের ঝন-ঝনা-ঝন সাতকাহন!
কোথাও  চুড়ির আওয়াজ,রোদের গন্ধে গন্ধরাজের মৌমিতা প্রেম
অষ্টাদশী রোদ মিহিন সুতোর ডোরে বাঁধে
এই মাটিময় দেহ-মন,ঘামে ভেজা স্বপ্ন, আমার উবুজুবু সব
সাদাকালো গোপন পাতার গুঞ্জন।

ফেরারি প্রজাপতি স্বরসঙ্গীতে বাড়ায় সখ্যতা
নদীও জানেনা কখন সে নাচে ঢেউয়ের নাচন দোলায়
কুঁড়ি হতে ফুল, হলুদ গাঁদা ফুল , বেলী-গন্ধরাজ
শিমুলের লাল, পলাশের লাল, লাউয়ের লতানো ডগায়
হাসে ফিঙে মাতোয়ারা, বুনো ফুল হাসে উদোম বাতাসে
শুনে কোকিলের কোরাস কুহুতান!
তবে কী? ষড়ঋতুর ডায়েরি খুলে এবার এলো বসন্ত?

আজ পলাশের বনে বসন্ত হয়েছে রাধা,
কৃষ্ণের প্রেমে পড়েই সে উন্মাদ,সেজেছে হলুদ আভায়
ঠিক এমনি এক সোনালী সকাল,একুশের দ্বার করে উন্মোচন
তাই নতুনের আবেশে আঁকি ভুলে যাওয়া বর্ণমালার রঙ।
সেই পুরানো নাম পুরানো গল্প,নতজানু হয় শহীদ মিনারে
তাই ফাগুনের ছত্রছায়ায় আসে সুর ভালোবাসা –মাখা
বে-নি-আ-স-হ-ক-লা রঙধনুর সাজে।

(আমার সকল সুহৃদ কে জানাই বসন্তের শুভেচ্ছা)