জীবনটা নিয়ে আর বিন্যাস-সমাবেশ করি না;
দেখি না কোন ভাওয়েল বিদ্যমান আছে কী না?
জানিইতো থাকলেই কী আর না থাকলেই কী!
তাই বলে এটা ভেবো না-হতাশার চাদরে ঘেরা আমি।
ম্যাট্টিক্স-ক্যালকুলাস কবেই বাদ দিয়েছি;অসমতাকে পাশ কাটিয়ে-
কী করব বলো-পকেটে টাকা থাকলেই -
সিগারেটের স্বাদ পাওয়া যায় না;ভালো লাগে না !
আর কারো সাথে এমনটা হয় কী না? তা জানি না।
তবে এটা জানি-পরনারী,পরপুরুষ সবারই ভালো লাগে,
কল্পনা আসে এক অদ্ভুত প্রকৃতির;আসে বাঁধভাঙ্গা ঢেউ...
নিজের বেলায় যত সমস্যা-ব্যাক্তিস্বাতন্ত্রবাদ।
ঐ দেখ- আবার সন্দেহ করে ফেললে,
হয়তো বলতে পারতে -নাকের কার্নিশে সেক্সের গন্ধ
দ্বিঘাত সমীকরণের কথা;বায়োলজিকাল রসায়নের গল্প।
আমি কী আর রাগ করে থাকতে পারতাম
ঠিকই উত্তাল না বলে প্রমত্ত নামের ভদ্র সব ভাষা ব্যবহার করতাম।
থামলে কেন ;বলো বলো -সারারাত কোথায় ছিলে; কোন হোটেলে?
কার সাথে? আমিতো বুঝি;বুঝি না?
তুমি কী আবারও রোমান সাম্রাজ্যের পতন ঘটাবে?
টুইন টাওয়ারে আঘাত হানবে? অদম্য আঘাত !
পরকীয়া রসে মাতাল হবে কী স্বর -ব্যঞ্জনের মিশ্রণে?
নাকি গলা টিপে হত্যা করবে অগণিত নিষ্পাপ শিশুদের?
কী লাভ বলো? ভাগফল কিন্তু জিরো!
বলি কী -ফিরে এসো তৃষ্ণা-ঐ আপেক্ষিক বৃত্ত থেকে
আবার সাজাই সেই নষ্ট সংসার।