সারাদিন ভেবেছি কি যেন কি বলার ছিল তোমাকে,
আধবেলার হেঁয়ালী নীল খামে দেব লিখে;
পোষা বিড়ালের হারানো খবর অথবা জিহবার কামড়,
মৃত চারাগাছে রোদ্র প্রখর যেন রয়েছে অনড়|


টুকিটাকি একথা সেকথা শুধু অযথা বলার ছিল,
নিত্য মেহমানের কুটুর কুটুর আড্ডায় জমাট মহল;
অভুক্ত সকালে কেন হেঁটেছি একা না মেনে প্রথা,
অভিযোগের ডাল পালা বেড়ে ছোট বোনের খুনশুটিতে নিজের পাওয়া ব্যাথা|
কেটে যাওয়া আঙুলে বরফ চুষে দেওয়া,
বিকেলে বন্ধুর মমতায় হাতের চিপস কেড়ে নেওয়া|


মুগ্ধ বই পড়ে হঠাৎ কেঁদে ফেলা,
মায়ের বকাতে মন খারাপের মেলা|
ভীত স্বপ্নের আচড়ে ভয়ের ছোবল,
অন্ত লালায় ভেজা মুখের অঞ্চল|


এসবের ফাঁকেও ছিল জরুরি কথা,
কোথায় ভূমিকার শুরু কোথায় শেষের পাতা,
এ নিয়ে দ্বিধায় ভুগে নষ্ট হল মাথা,
বোকার ঠোঁটে কথার বুলি অজান্তে নিরবতা||