এইসব শীতের কুয়াশা ঢাকা হিম সকাল পেছনে ফেলে
চৈত্রের রোদ্দুরে শুকনো বংশাই নদীর পাড় ধরে, হেঁটে যাব সফেদ মৃত্যুর দেশে একদিন।
হেঁটে যাব উত্তর থেকে দক্ষিণে,
বরষায় ভেসে চলা কচুরিপানার মতো
শরতের একখণ্ড শাদা মেঘের মতো।
আমি হেঁটে যাব জেলেপল্লির কুমারী মেয়ের ঘুঙুরের শব্দ শুনে শুনে,
ঘাটে নোঙর করা একঝাঁক ডিঙির তলানিতে মৃদু ঢেউ হয়ে।
আমি হেঁটে যাব বিস্তৃত দিগন্তে রসালো আনারস আম জাম আর কাঁঠালের অরণ্য পেরিয়ে,
সবুজ ধানের ক্ষেত আর সরষেফুলের সমারোহ ছুঁয়ে ছুঁয়ে।
এইসব শীতের কুয়াশা ঢাকা হিম সকাল পেছনে ফেলে।
-