‘মুক্তিযুদ্ধ’ তোমাকে চোখে দেখিনি। তাই বলে        
ভুলিনি তোমার রক্তাক্ত ইতিহাস ।
বাবা-মার মুখে শোনা, তারপর
বড় হয়ে আদ্যপ্রান্ত জেনেছি, ধারণ করেছি ।


৭ই মার্চ, বঙ্গবন্ধুর ভাষণ, যুদ্ধের প্রস্তুতি ও ঘোষণা
এভাবে এপ্রিলের এক দিনে, বিনোদ গঞ্জ বাজার
হঠাৎ হানাদারের আক্রমণ, সাথে রাজাকার-শান্তি কমিটি
মুহূর্তে স্তব্ধ হয়ে গেল, বাজার-ঘাট-লোকালয়
পালিয়ে জীবন বাঁচাতে কে কোথায়
ততক্ষণে লুট শুরু, দোকানের যত মাল টাকা
দেরি হয়নি আগুন দিতে, বহু মালের গুদাম ।
বাড়িতে বাবা তখনও জানতে পারেনি
কে যেন দৌড়ে এসে কাঁপা কণ্ঠে, বাজারে মিলিটারি  !
কি করি-কোথায় যাব-সামলে থেকো, শুধু এতটুকু
মা-ভাবী,  ভাই-বোন, সকলেই যেন দিশেহারা
শেষ দেখা হয়তো, বাবার দ্রুত প্রস্থান ।


রাজাকারের দল আগেই তৈরি ছিল, তাই
সুযোগ বুঝে, লুটের নেশায়, টার্গেট-সরদার বাড়ি ।
আইয়্যে স্যার, ইয়্যে জয় বাংলা, ইয়্যে আওয়ামী
এবার গ্রাম অভিযান, তাই পালাতে পরিবার গোরস্থান
বুলেটের শিকার শুধু দোতালা বাড়িটি ।
সামনে পেলে বুক ঝাঁঝরা, নয়তো পাকড়াও
লুট হলো রক্ষিত বহু স্বর্ণ-অর্থ-গোলার ধান
যেন সাহেব বাপের জমিদারি পেয়েছে ।
পলাতক বাবার অনুরোধে, ভাইয়েরা তখন ট্রেনিং-এ
মুক্তি বাহিনীতে ! শুনে আগুন, রাজাকার-মিলিটারি
তাই খতমের পরিকল্পনা সকলকে-
বাড়ি ঘিরে প্রাত্যহিক অভিযান ছিল হঠাৎ


স্বর্গীয় দানবীর রায় সাহেবের বিনোদ গঞ্জ, সাথে
বিশাল বাড়িটির দখল নিয়ে, রাজাকার ক্যাম্প ।
নির্যাতন-নিষ্পেষণ চলতো গোটা এলাকা ঘিরে
নদীর তীর ‘ ফুল তলা’  আজ আর অস্তিত্ব নেই
যেখানে নিরীহ মানুষ গুলোকে ধরে নিয়ে
চোখ বেঁধে দাঁড় করাতো । তারপর-
রাইফেলের গুলির শব্দ; জয় বাংলা খতম
কপোতাক্ষের জলে কত  লাশের যে স্নান হয়েছে, কে জানে ।


৫ই ডিসেম্বর, আকষ্মাৎ সমরে মুক্তি যোদ্ধারা
নোয়াকাটী, প্রতাপকাটী, কানাইদিয়া, কাছিকাটা চতুর্দিকে
ক্যাম্প ঘিরে মুক্তিযোদ্ধা-জনতা একাট্টা,  দিনভর লড়াই
রাতে একটু বিরতি, আবার যুদ্ধ ;  তুমুল যুদ্ধ
মুহুর্মুহুঃ মর্টার সেল নিক্ষেপ, দিশেহারা রাজাকার
৭ই ডিসেম্বর, অবশেষে আত্মসমার্পন ।
ক্যাম্প ঘরে মৃত মহিলার নিপীড়ন দেখে, ক্ষিপ্ত জনতা
ক্ষমা নেই এদের, নি:সংকোচে প্রতিবেশীর করুন বর্ণনা
অবশেষে জন বিক্ষোভে সিদ্ধান্ত -‘গণ আদালত’
অবিস্মরণীয় গণ রায় -‘গুলিতে মৃত্যুদণ্ড’।
হাজার জনতার সম্মুখে, গুলিতে কার্যকর গণ রায়
সারা দেশের মুক্তিযুদ্ধে, এটিই বিরল ইতিহাস ।


পুরো দেশ জুড়ে নয় মাস, সাহসী বীরের জাত
মৃত্যুর পরোয়া না করে, এনেছে স্বাধীনতা
নাম, লাল-সবুজের বাংলাদেশ ।
মুক্তিযুদ্ধ-বঙ্গবন্ধু-বাংলাদেশ, তাই এক সূত্রে গাঁথা
যার বিস্তৃতি নয় পরাহত, অনাগত আগামীর
মুক্তিযুদ্ধ যাকে চোখে দেখিনি, খণ্ডচিত্র এভাবে জেনেছি   ।।