কিছু লোকে তাকে পাগল বলে
না করেও পাগলামি।
কেন তাকে নিয়ে উপহাস
উত্তরে, যত অজুহাত।
অযথা নাকি বাঁধায় ঝগড়া
ছোট লোকের পক্ষ নিয়ে।
অন্যায় দেখলে করে প্রতিবাদ
আপন পর নাই চেনে।
জননেতা যেখানে চুপ থাকে
উঁচু-নিচু ভেদ বুঝে,
উনি এমন কিসের নেতা
পাগলামি, চলেনা সব জায়গা।
আসল ব্যাপার হাটে হাড়ি ভাঙা,
তাই স্বার্থবাদীরা জোট হয়ে
করে দিন রাত মিথ্যাচার
পাগলের সঙ্গ ছাড়।


সমাজ নীতি পাল্টে গেছে
নয়া যুগের আগমনে।
দেশের চিন্তা বাদ দিয়ে
ব্যক্তি পূজায় ব্যস্ত সব।
লাভ নেই যে সব কাজে
সময় দিব কেন তাতে।
ব্যস্ততা আর নীরবতায়
যোগ হয়ে এক দারুণ সময়
সবাই আছে সবার তালে
এই সুযোগে চলবে সব।


প্রশাসন আর সিন্ডিকেট
মিলে এখন এক জোট
বোকা জনতার জিম্মি করে
তারাও লোটে উপরি বেশ।
নেতাদের আছে শত কারবার
আখের গুছায় যারা দিনভর।
কারো আছে মাদক ব্যবসা
তাই যুবকের করুন দশা।
আরও পেয়ে ইন্টারনেট
মজায় কাটে সময় বেশ।
হতচ্ছাড়া সমাজ এখন
হয়ে গেছে বিবেকহীন।


দেশটা কি তবে এমনি যাবে
হতাশ হয়ে গেছে সবে
পাক শাসকের প্রতিবাদ করে
যারা হয়েছিল পাগলের দল
জীবন দিয়ে, যুদ্ধ করে
ফিরে এনেছিল অধিকার
পাক আর দেশ বিদ্বেষী ছাড়া
কেউ বলেনা, পাগলামিতে মরেছে তারা।
প্রতিবাদী হলে পাগল বলে
বুদ্ধিজীবীর এই সমাজে
যুগে যুগে তারাই পাগল
যারা গড়ে গেল এই দেশটাকে  ।।