একটাই ফুল, ডালের বৃন্তে।
কতো ভ্রমরের আনাগোনা;
সকাল দুপুর রাত নেই।
কি করবে সেই পূর্ণ প্রস্ফুটিত পুষ্প,
কতোজনকে বিলাবে মধু?
হৃদয় দেওয়ার নাম করে সারাক্ষণ শুধু গুনগুন গুনগুন গুনগুন চারপাশে;
কতোক্ষণ স্থির থাকবে তার উদ্বেলিত দেহপল্লব!
মাতাল সমীরণে আর কতো সুঘ্রাণ ছড়াবে আকুল হয়ে?
কার অপেক্ষায় কখন এসেছিলো কুঁড়ি হয়ে,
বসেছিলো শাঁখে ঘোমটা টেনে!
মাহেন্দ্রক্ষণ আসেনি কি, আসেনি কি সেই কালো ভ্রমর?
পথ হারিয়ে পথে পথেই কাটিয়ে দিলো জীবন!
মধু পূর্ণিমাতেও দেখা নেই।
হাজারো লোভী ভ্রমর দল বেঁধে এসে বসে শরীরে;
খেয়ে যায় মধু ভালোবাসার ভান করে।


সেই কালো ভ্রমরটি অবশেষে এলো বটে আঙিনায়,
ভিড়তে পারেনি ফুলের কাছে লোভী ভ্রমরগুলোর ভিড় ঠেলে।
ক্লান্ত অভিমানী ফুলটিও সব বিলিয়ে ঝরে যাওয়ার অপেক্ষায়!


রচনাকাল: ঢাকা, ২৯ মার্চ ২০১৯


কপিরাইট : শফিকুল ইসলাম বাদল, কল্যাণপুর, ঢাকা-১২০৭।