১৬/১০/২০২০ ইং , সময় – সকাল – ৮ – ০০ টা


শান্তি  ও  ন্যায্য তা  । ।


থাকে বিদ্যমান ন্যায্য তা        
আনে শান্তির বারতা
অধিকার রক্ষায় ন্যায়পরায়ণতা
পাবে শান্তির সুস্থিতা ।
যদি হয় ন্যায় বিচার সুনিশ্চিত
সেখানে শান্তি উপস্থিত
সুষম বণ্টনে ন্যায্য তা
মনে জাগে শান্তির আস্থা ।


সামাজিক স্থিতিশীল তায় ন্যায় পরয়ণনতার চর্চা  অপরিহার্য  
শান্তির জন্য এটা অনস্বীকার্য
মানুষের সাম্য তা রক্ষায় প্রয়োজন ন্যায্য তা
এখানে আসবে কল্যাণের বার্তা ।
ভোট , ভাত ও কর্মের অধিকার
থাকতে হবে ন্যায়পরতা র অঙ্গীকার
শিক্ষা  চর্চায় সুনিশ্চিত রবে ন্যায় নীতি
দূর হবে মঞ্জুল সমাজ ও দেশ গঠনের ভীতি ।  


ন্যায়পর তায় কাটবে সমাজের অস্থিরতা  
সেখানে চলবে জাগ্রত বিবেকের তৎপরতা
খুন , ধর্ষন , দুর্নীতি , অন্যায় , অত্যাচার , স্বজনপ্রীতি
সুবিচারের কাঠগড়ায় বিনাশ হবে সব অপকীর্তি
বিচারের সাম্য তা হয় যদি রক্ষা
থাকবে না শান্তি-স্বস্তির অপেক্ষা
ন্যায় বিচারের ধারাবাহিক অনুশীলন
এখানেই শান্তিময় জীবনের মিলন ।


আসে দেশে ন্যায় নীতি ও ন্যায় বিচারের বার্তা  
নিঃশেষ হবে মানুষের মনের দুরাচার , পাপ – পঙ্কিলতা
সংবিধান , গণতন্ত্র ও সমাজতন্ত্রের মিথ্যা বুলি নয়
এতে শুধু মানবতার হয় ক্ষয়
চাই  প্রকৃত ন্যায়-পরায়ণ ভিত্তিক রাষ্ট্র  ও সমাজ
তাতে অচিরেই মিলবে শান্তির আভাস
পেতে হলে আলোকিত মানুষ , আলোকিত জাতি
ছড়িয়ে দিতে হবে সাম্য , ন্যায়-নীতি ও সুবিচারের জ্যোতি !


যদি ন্যায় পরায়ণ তা আসে জানালায়
তখন শান্তির উপস্থিতি পাবো দরজায়
অতএব , ন্যায্য তা বিরাজমান থাকে দেশে
জনগণ বাস করবে শঙ্কা  বিহীন সুখে
শান্তি ,স্বস্তি , স্থিতিশীলতা  এবং  ন্যায্য তা
অঙ্গাঙ্গিভাবে  জড়িত
ন্যায়পরতা ব্যতীত অপর গুলোর
আশা ও কল্পনা করা পূর্ণ  অসারতা ।    

তাই , মোরা নেবো প্রদীপ্ত  শপথ
শান্তি ও কল্যাণের পথে অবিরত
ন্যায় পরায়ণ তায় থাকবো অবিচল
ধর্মে , কর্মে , স্বভাব-চরিত্রে জাগাবো এর প্রতিফল  । ।


শান্তি ও ন্যায়-নিষ্ঠ ভিত্তিক  সমাজ ও জাতি গঠনে
সব মানুষের হোক প্রত্যাশার অঙ্গীকার
সকল বৈষম্য সমুদ্রের অতলান্তে ডুবে
শুভ্র  অধিকার ও মানবতার হোক ন্যায্য প্রতিকার !


শরীফ নবাব হোসেন । ।